Random Posts

ভেড়ামারার জয় ৪হাজার মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত দিয়ে মন জয় করেছে

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার শাওন আফরীন জয় ৪হাজার মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত দিয়ে মন জয় করেছে। জয় স্বেচ্ছায় মুমূর্ষু রোগীদের নিয়মিত রক্ত দান করে মানবতার সেবায় এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। ৩৬টি ফ্রি ক্যাম্প করে ৭ হাজার জনের রক্তের একটি বিশাল তালিকা রয়েছে। প্রায় ৪ হাজার ব্যাগ রক্ত দিয়ে মুমূর্ষু রোগীকে বাঁচিয়ে তোলার কাজে এগিয়ে এসেছেন। শাওন আফরীন জয় ভেড়ামারা শহরের রথপাড়া এলাকার সাইফুল ইসলাম ও রেহেনা খাতুনের ছেলে।
শাওন আফরীন জয় প্রথমে নিজেই মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত দিতে থাকে। এক সময় তার নিকট আন্তীয় এর  রক্তের খুবই প্রয়োজন। কিন্ত রক্ত পেলেন না। তখন থেকে তার ইচ্ছা একটি সংগঠন গড়ে তুলবেন। রক্তের জন্য কোন মুমূর্ষু রোগী যে আর মারা না যায়। এই ঘটনার পর শাওন আফরীন জয় এলাকার বন্ধু-বান্ধবীদেরকে সাথে নিয়ে ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন রক্ত জীবন ভেড়ামারা নামের একটি সংগঠন। ভেড়ামারা,মিরপুর ও দৌলতপুরসহ জেলার মুমূর্ষু রোগীদের বিনামূল্যে নিয়মিত রক্ত প্র্রদান করে আসছে। তার সংগঠনের সকল সরকারি ও বেসরকারি অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করে। তার সংগঠনের সহযোগিতায় ৭হাজার মানুষের ফ্রিতে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করেছে।
শাওন আফরীন জয় নিয়মিত একজন রক্তদাতা। এ পর্যন্ত ১৫বার নিজেই রক্ত দিয়েছে। রক্ত প্রয়োজন, এমন কথা শুনলে সে অস্থির হয়ে যায় রক্ত সংগ্রহ করতে ব্যস্ত হয়ে উঠে। মিষ্টভাষী ও ভদ্র ছেলে। নিজ এলাকায় তাকে সবাই খুব পছন্দ করে। অন্যকে সাহায্য করতে কখনো দ্বিতীয়বার চিন্তা করেন না। তিনি নিয়মিত একটি ডায়েরি সংরক্ষণ করেন। তার অধীনে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন বয়সী মানুষ রয়েছে তার সংগঠনে। প্রতি মাসে নিয়মিত ২০ জনকে ফিতে রক্ত দিয়ে আসছে।
শাওন আফরীন জয়ের নিজে হাতে গড়ে তোলা রক্ত জীবন ভেড়ামারা নামের এই সংগঠন সব জাতীয় দিবস পালন করে আসছে। করোনার সময় বাড়ি বাড়ি গিয়ে আক্্িরজেন সিলিন্ডার দিয়ে আসা। প্রায় ৩ হাজার গাছ রোপণ করেছে। প্রতি বছর রমজান মাসে ইফতার বিতরণ। শীতবন্ত্র বিতরণসহ বিভিন্নভাবে সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী কাজে যুক্ত রয়েছে। জয় ও তার বন্ধুরা মিলে এ পর্ষন্ত ৩৬ টি ফ্রি ক্যাম্প করে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করেছে। স্বপ্ন দেখে সুন্দর, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং রক্তের কোন অভাব থাকবে না বাংলাদেশে। সবাই রক্ত দানে উৎসাহিত হবে। সে জরুরি প্রয়োজনে অসুস্থ ব্যক্তির রক্তের প্রয়োজন পড়লে তা সংগ্রহ করে দেয়ার চেষ্টা করেন।
নিকটাত্মীয়-স্বজন, বন্ধু এমনকি পরিচিত জনদের রক্তের গ্রুপ মোবাইল নম্বরসহ অসংখ্য ব্যক্তির নাম রয়েছে। কারও জরুরি প্রয়োজনে রক্ত লাগলে মোবাইলে অথবা সরাসরি যোগাযোগ করেন। তাৎক্ষণিক ওই ব্যক্তিকে কোনো টাকা ছাড়াই রক্ত সংগ্রহ করে দেন। রক্তের প্রয়োজন হয় তখন মানুষ দিশাহারা হয়ে ওঠে। কোথায় পাবে, কীভাবে পাবে, কার সঙ্গে যোগাযোগ করলে রক্ত পাওয়া যাবে? সেই চিন্তা যেন তখন আকাশ সমান হয়ে দাঁড়ায়। রক্ত জোগাড় করে দিলে রক্ত গ্রহীতা ও তার আত্মীয়-স্বজনের হাসিমুখ দেখতে পাই। তখনকার অনুভূতি বোঝানোর মতো নয়। রক্ত জোগাড় করে দিলে মনে প্রশান্তি কাজ করে। কারও মুখে হাসি ফোঁটাতে পারার আনন্দ আসলেই অন্যরকম। বিভিন্ন সময় অসুস্থ মানুষের রক্তের প্রয়োজন পড়ে। কোনো ব্যক্তি রক্তের প্রয়োজন জানালে বন্ধু, পরিচিতজন, নিকটাত্মীয়দের কাছে রক্তদানের জন্য অনুরোধে করি। সে ব্যক্তি সম্মতি হলে অসুস্থ ব্যক্তিকে রক্তদান করা হয়।
ইতি খাতুন জানান, শাওন আফরীন জয় মানুষকে রক্ত সংগ্রহ করে দেন। এতে অনেক মানুষ উপকৃত হয়। তার কাছে ভেড়ামারাবাসী কৃতজ্ঞ।
রক্ত জীবন ভেড়ামারা সহকারি প্রতিষ্ঠাতা হাসিবুল হোসেন জানান, মুমূর্ষু গরিব রোগীর রক্তের প্রয়োজন হয়। শাওন আফরীন জয় কে জানানো মাত্র বিভিন্ন জায়গায় ফোন দিয়ে যোগাযোগ করে রক্ত সংগ্রহ করে দেন। এটি খুবই ভালো কাজ। শাওন আফরীন জয় এর কাজ সত্যিই প্রশংসার দাবিদার।
আশিক ইকবাল জানান, ৫ বছর ধরে শাওন আফরীন জয় বিনা টাকায় রক্ত দিয়ে সহযোগিতা করে আসছে। ভেড়ামারায় একটি রক্ত সংরক্ষণ রাখার জন্য ব্লাড ব্যাংক অথবা স্থায়ী ব্যাবস্থার দাবী জানাচ্ছি।

Post a Comment

0 Comments