ভেড়ামারায় আত্মাহুতি দিতে যাওয়া নারী ও শিশুর জীবন বাঁচালো জনগণ

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় স্বামীর উপর অভিমান করে আত্মাহুতি দিতে যাওয়া নারী ও শিশুর জীবন বাঁচালো জনগণ। শুক্রবার ভেড়ামারা থানার মাধ্যমে অভিভাবকের নিকট নারী ও শিশুকে হস্তান্তর করেন।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, ভেড়ামারা রেল স্টেশনে বৃহস্পতিবার রাতে এক নারী তার শিশু সন্তানকে নিয়ে চলন্ত ট্রেনের সামনে  দাঁড়িয়ে আত্মাহুতির চেষ্টা করে । এসময় রেল স্টেশনের নিকটে থাকা যাত্রী ও আশেপাশের লোকজন ঘটনাটি দেখতে পেয়ে দ্রুত ছুটে এসে তাকে রেললাইন থেকে সরিয়ে নেয়। এরপর এলাকাবাসী উক্ত মহিলাকে ভেড়ামারা থানা পুলিশের নিকটে হস্তান্তর করে।
ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা জানান, ভেড়ামারা উপজেলার ক্ষেমিরদিয়াড় বরুইচরা গ্রামের
জুয়েল মিয়ার স্ত্রী জেসমিন খাতুন স্বামীর উপর অভিমান করে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নেয়। রাজশাহী গামী আপ লাইনে আন্তঃনগর সাগরদাড়ী এক্সপ্রেস ট্রেনের সামনে এক নারী তার শিশু সন্তানকে নিয়ে দাঁড়ানো অবস্থায় সহৃদয় জনগন তাকে দেখতে পেয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাকে চলন্ত ট্রেনের সামনে থেকে সরিয়ে নিয়ে আসে। এভাবে নারী তার শিশুসন্তান প্রাণ রক্ষা পায় । উক্ত নারীর  দেয়া তথ্য মোতাবেক তার স্বামীকে থানায় তলব করা হয়। এরপর তার স্বামীকে শাসন ও প্রয়োজনীয় আদেশ-উপদেশ সহকারে তার নিকট নারী তার শিশু সন্তানকে  হস্তান্তর করে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে স্বামীর উপর অভিমান করে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বলে জানায়।

Post a Comment

Previous Post Next Post