স্কুলছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় মূল আসামি গ্রেপ্তার

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলার পলাতক মূল আসামি আলামিন হোসেনকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। রোববার রাতে গাজীপুর থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আলামিন কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার আলাউদ্দিন নগর গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে।  সোমবার র‌্যাব-১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার ইলিয়াস খান এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।
লিখিত বক্তব্যে ইলিয়াস খান জানান, অসৎ উদ্দেশ্যে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের ফাঁদে ফেলেন পার্শ্ববর্তী আলাউদ্দিন নগর গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে আলামিন হোসেন। গত মার্চ মাসের ৬ তারিখে কথা বলার জন্য ওই স্কুলছাত্রীকে বাড়ি থেকে একটি নির্জন স্থানে ডেকে নিয়ে আসেন আলামিন। যেখানে আগে থেকে ইমন এবং রাকিব নামে আলামিনের দুই বন্ধু উপস্থিত ছিলেন।  সেখানে কথা বলার একপর্যায়ে আলামিন ও তাঁর দুই বন্ধু ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেন এবং সেই দৃশ্য ইমন তাঁর মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখেন। পরবর্তী সময়ে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে আলামিন ভুক্তভোগীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে ওই ভিডিও গ্রামের কয়েকজন যুবকের মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে পড়ে এবং লোকমুখে জানাজানি হয়ে যায়।
এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর দাদি বাদী হয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর কুমারখালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলার পর বিষয়টি র‌্যাবের নজরে আসে এবং ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের জন্য তারা গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার মধ্যরাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখার সহযোগিতায় গাজীপুর শহরের একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আলামিন হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।
ইলিয়াস খান আরও জানান, আলামিন হোসেন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাঁর অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। পরে আলামিনকে কুমারখালী থানা-পুলিশের মাধ্যমে আদালতে নিলে, আদালত তাঁকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

Post a Comment

Previous Post Next Post