খুনের মামলার আসামিকে কুপিয়ে হত্যা

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে সেলিম হোসেন (৪৬) নামের খুনের মামলার আসামিকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। সোমবার (১ আগস্ট) সকালে উপজেলার চরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সেলিম হোসেন উপজেলার সদকী ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের মৃত সেকেন আলীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন ইটভাটা শ্রমিক ছিলেন। তিনি একই এলাকার হুমায়ুন মণ্ডল হত্যা মামলার আসামি ছিলেন।
পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভাটার কাজে যাচ্ছিলেন সেলিম। এসময় চরপাড়া এলাকায় পৌঁছালে সাইদুল ইসলাম (৩৬), আসলাম হোসেন (৪২), রাজু আহমেদসহ (২৭) বেশ কয়েকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। পরে তার চিৎকারে স্বজন ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।
এর আগে ২০২০ সালের ৬ মে জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চরপাড়া জামে মসজিদ থেকে তারাবির নামাজ আদায় করে বাড়ির ফেরার পথে হুমায়ুন মণ্ডলকে (৪৫) কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। পরদিন নিহতের ছোট ভাই সাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৩৬ জনের নামের কুমারখালী থানায় একটি মামলা করেন। সে মামলায় সেলিমকে আসামি করা হয়।
নিহতের ভাই শাহিন বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। আমি এ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার চাই।
সদকী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিনহাজুল আবেদীন দ্বীপ বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে জেরে ২০২০ সালে একজন খুন হয়। সেলিম সেই মামলার আসামি। আজ প্রতিপক্ষের লোকজন কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক।
কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, সেলিম হোসেন একটি হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। প্রতিপক্ষের লোকজন সকালে তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Post a Comment

Previous Post Next Post