Header Ads

কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা, অভিযোগ গঠনের শুনানি ২৬ এপ্রিল

 

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানির তারিখ পিছিয়ে আগামী ২৬ এপ্রিল নির্ধারণ করেছেন আদালত।

রোববার (০৬ মার্চ) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-২ এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম নতুন তারিখ নির্ধারণ করেছেন।

এদিন এ মামলার অভিযোগ গঠনে শুনানির দিন নির্ধারিত ছিল।
আদালতের তথ্যমতে, আসামিপক্ষ বিভিন্ন কারণে এ নিয়ে ৩৭ বার সময় চেয়ে আবেদন করেছে।
খালেদা জিয়ার পক্ষে তার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার সময় চেয়ে আবেদন করেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এ মামলাটি তদন্তকালে জব্দকৃত যে আলামতগুলো তদন্তকারী কর্মকর্তার কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য আরও সময় প্রয়োজন।
আদালতে  বিএনপি নেতা আলতাফ হোসেন চৌধুরীসহ এ মামলার ৩ আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আরেক আসামি মো. সিরাজুল ইসলাম মামলা দায়েরের পর থেকে পলাতক রয়েছেন।
 
প্রসঙ্গত বড়পুকুরিয়া খনির কয়লা উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করে। ওই বছরের ৫ অক্টোবর ১৬ আসামির বিরুদ্ধে সংস্থাটি অভিযোগপত্র জমা দেয়।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান (মৃত), সাবেক স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী আবদুল মান্নান ভূঁইয়া (মৃত), সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী (মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে), সাবেক সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মো. মুজাহিদ (মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে), খন্দকার মোশাররফ হোসেন, এম কে আনোয়ার (মৃত), এম শামসুল ইসলাম (মৃত), আলতাফ হোসেন চৌধুরী, আমিনুল হক (মৃত), এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান এস আর ওসমানী, সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম ও খনির কাজ পাওয়া কোম্পানির স্থানীয় এজেন্ট হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন।

No comments

Powered by Blogger.