Header Ads

চাঁদগ্রামের চরপাড়া মাঠ থেকে এবার ১২টি সেচযন্ত্র লুট ॥ বিপদে কৃষকরা

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল ॥
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার চাঁদগ্রামে এবার ১২টি সেচযন্ত্র লুটের অভিযোগ উঠেছে। এর আগে আওয়ামী লীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান মণ্ডল হত্যার ঘটনার জের ধরে মালিথা ও প্রামাণিক বংশের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। সেচযন্ত্র চুরির ঘটনায় চাঁদগ্রামের কৃষক শরিফুল ইসলাম ৮ জনের নাম উল্লেখ করে ভেড়ামারা থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ ও ভুক্তভোগীর সূত্রে জানা গেছে, মণ্ডল ও মালিথা গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। যখন হত্যার ঘটনা ঘটেছে, তখনই লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এবার সিদ্দিক হত্যার জের ধরে চাঁদগ্রামে বসতঘর ভাঙচুর ও লুটপাট হয়েছে। এ ছাড়াও চরপাড়া মাঠ থেকে ১২টি সেচযন্ত্র লুট হয়।
কৃষক শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘রবিউল, সেলিম ও ওয়াসিমসহ আটজন পূর্বশত্রুতার জের ধরে আমার বর্গাকৃত চড়ের জমিতে গিয়ে একটি সেচের মেশিন তুলে নিয়ে গিয়েছে। এ সময় নলকূপের অন্যান্য যন্ত্রাংশ নষ্ট করে দিয়ে যায়। বাধা দিতে গেলে ১০ বিঘার ধান নষ্ট করে দেওয়ার হুমকি দেয়। অথচ দুই বংশের আমি কেউ না। সেচের অভাবে আমার ১০ বিঘা জমির ধান শেষ হয়ে যাবে। এটি হলে আমি নিঃস্ব হয়ে যাব।’
ওই মাঠের কৃষক আব্দুল হামিদ কটা বলেন, আমার ৪টা সেচযন্ত্র লুট করে নিয়ে গেছে। এ ছাড়া রেজাউলের ২টি, ভাষার ২টি, রিপন, জিয়া, আসাদ ও রাজুর একটি করে সেচযন্ত্র লুট হয়েছে।
এ বিষয়ে ভেড়ামারা থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, ১২টি সেচযন্ত্র লুট হয়েছে এমন অভিযোগ এখনো পাইনি। তবে একটির অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উল্লেখ্য, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার চাঁদগ্রাম ইউনিয়নের চাঁদগ্রাম মধ্যপাড়া গ্রামে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি বংশগত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের গুলিতে আওয়ামী লীগ নেতা ও মণ্ডল বংশের সিদ্দিকুর রহমান মণ্ডল নিহত হন।

No comments

Powered by Blogger.