ভেড়ামারার চিকিৎসক মাদক মামলায় ১৫ বছরের কারাদণ্ড

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ মাদক মামলায় কুষ্টিয়ার সরকারি টিবি হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. আসাদুজ্জামান ওরফে ফিরোজকে (৪১) ১৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর দুই আসামিকে খালাস দেন আদালত।  
রোববার (১০ অক্টোবর) বিকালে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক তাজুল ইসলাম জনাকীর্ন আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত চিকিৎসক আসাদুজ্জামানের গ্রামের বাড়ি ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপনগর বাহাদুরপুর কারিকর পাড়া গ্রামে।  
মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৭টায় মিরপুর উপজেলা জিয়া সড়কে মাদক উদ্ধার অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় সড়কের নাহারুল মালিথার মালিকানাধীন স’মিলের মোটর ঘরের ভেতরে তল্লাশি চালানো হয়। সেখানে ১০টি প্যাকেট ভর্তি দুই হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় ডা. মো. আসাদুজ্জামান ওরফে ফিরোজ, জয়নাল আবেদিন ও নাহারুল ইসলাম গংকে। পরে মিরপুর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন বাবু বাদী হয়ে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের দ:বি: ১৯(১) এর ৯(খ) ধারায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন।  
মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৫ সালে ১৪ সেপ্টেম্বর উপ পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার হোসেন বাবু ৩ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে চার্জশীট দাখিল করেন আদালতে।
কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত ডা: আসাদুজ্জামান ওরফে ফিরোজকে ১৫ বছরের কারাদণ্ড দেন। এছাড়া তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ড দেন।

Post a Comment

0 Comments