Header Ads

হত্যার দায়ে বন্ধুর আমৃত্যু কারাদণ্ড

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলায় উচ্চশিক্ষার জন্য অস্ট্রেলিয়া যাওয়াকে কেন্দ্র করে বিবাদে শিপলু রহমান সাকিবকে (২১) গুলি করে হত্যার ঘটনায় তার বন্ধুকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
রোববার বিকালের দিকে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় দেন। আসামি শেখ সরোয়ার তুহিনকে কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ওই আসামি হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার ভাদুগড় গ্রামের টিএন্ডটি পাড়ার শেখ জহিরুল হকের ছেলে শেখ সরোয়ার তুহিন (৩৫)। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।
আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালের ২৫ আগস্ট রাতে শিপলু রহমান সাকিবের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে হত্যা করে তুহিন। হত্যার পর লাশ দৌলতপুর উপজেলার বিল বোয়ালিয়া ও কিশোরীনগর বিলের মাঝখানে ফেলে রাখে। পরদিন ২৬ আগস্ট সকালে দৌলতপুর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। একই দিন দুপুরে দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।
শিপলুর স্বজনরা রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তারা বলেন, ‘শিপলুকে গুলি করে হত্যা করে তুহিন। ১০ বছর আদালতে মামলার কার্যক্রম শেষে আসামিকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ রায়ে আমরা খুবই খুশি।’
আদালতের পিপি অনুপ কুমার নন্দী বলেন, হত্যা মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আসামি তুহিনকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

No comments

Powered by Blogger.