ট্রেনে কাটা পড়ে পথশিশুর দুই হাত বিচ্ছিন্ন

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ ট্রেনে কাটা পড়ে রজব আলী (১০) নামে এক পথশিশুর দুই হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে কুমারখালী উপজেলার চড়াইকোল রেল স্টেশন এলাকায় চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে এ ঘটনা ঘটে।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় রজবকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের ১ নম্বর অর্থোপেডিক ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত রজব পথশিশু। তার বাবা-মা ফরিদপুর জেলার বাসিন্দা। তার বাবার নাম রাজু। কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
দুর্ঘটনার সময় উপস্থিত রজবের সঙ্গী নিশান, আলী ও মনির ঢাকা পোস্টকে বলে, সে কুষ্টিয়া রেলস্টেশনে রাতে থাকে। দিনের বেলায় কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী লাইনের ট্রেনে চড়ে বিভিন্ন স্টেশনে যাওয়া-আসা করে। ভিক্ষাবৃত্তি করে যা আয় হয় তা দিয়ে নেশা করত। নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ট্রেন থেকে পড়ে দুই হাত বিচ্ছিন্ন হয় রজবের। রজব আমাদের বন্ধু। আমরা একসঙ্গে ঘুরে বেড়াতাম। ঘটনার সময় আমরা তার সঙ্গেই ছিলাম।
হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, পথশিশু রজপবের বিচ্ছিন্ন হওয়া দুই হাতের ক্ষত স্থানে ব্যান্ডেজ করা হয়েছে। শিশুটি যন্ত্রণায় চিৎকার করছিল।
গুরুত্ব অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে রজবকে হাসপাতালে ভর্তি করেন চড়াইকোল রেল স্টেশন এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা তুফান হোসেন। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, রোববার দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে চড়াইকোল রেল স্টেশন এলাকায় রাজবাড়ী থেকে ছেড়ে আসা কুষ্টিয়াগামী চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে রজব নামের ওই পথশিশুর দুই হাত বিচ্ছিন্ন হয়। তারা কুষ্টিয়ায় যাওয়ার জন্য খোকসা থেকে নকশিকাঁথা মেইল ট্রেনে ওঠে। পথিমধ্যে এই দুর্ঘটনা ঘটে।  
তিনি আরও বলেন, তার খারাপ অবস্থা দেখে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। বিভিন্ন সংগঠন তার খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। চিকিৎসার জন্য রক্ত সংগ্রহ করে দিচ্ছেন, ওষুধ কিনে দিচ্ছেন। তার স্বজনরা সোমবার কুষ্টিয়ায় আসবেন।
রাফি নামের একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠন গুরুতর আহত রজবের চিকিৎসার জন্য নানাভাবে সহযোগিতা করছে। ওই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা অপু হোসেন রাফি বলেন, আমরা বিভিন্ন সূত্রে খবর পেয়ে রজবের পাশে দাঁড়িয়েছি। তার চিকিৎসার জন্য সার্বিকভাবে চেষ্টা করছি। আমদের সংগঠনের ফান্ড থেকে তার চিকিৎসা খরচ চালানো হচ্ছে। তার পরিবারের সঙ্গে এখনও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, তার মা-বাবা ফরিদপুরের বাসিন্দা। তারা এর আগে কুষ্টিয়া শহরে বসবাস করতেন।
এ বিষয়ে দায়িত্বরত চিকিৎসক ফাইম ফয়সাল বলেন, আশঙ্কাজনক অবস্থায় রজবকে রোববার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত রজবের ডান হাত কনুইয়ের নিচ এবং বাঁ হাত কনুইয়ের উপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তাকে তিন ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। সোমবার অপারেশন করা হবে। বর্তমানে আগের চেয়ে ভাল আছে।
এ বিষয়ে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, চলন্ত অবস্থায় পথশিশু রজব ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে শরীর থেকে দুই হাত বিচ্ছিন্ন হয়। তার পারিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। রজবের বাবা ফরিদপুর জেলার বাসিন্দা। সোমবার তারা কুষ্টিয়ায় আসবেন।

Post a Comment

0 Comments