গাছে ঝুলছিল কৃষকের ক্ষতবিক্ষত লাশ

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মফিদুল ইসলাম (৪৮) নামের এক কৃষকের ক্ষতবিক্ষত ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে দৌলতপুর থানা পুলিশ। বুধবার সকালে উপজেলার দাড়েরপাড়া গ্রামের মাঠের একটি বাগানে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন। মফিদুল ইসলাম দৌলতপুর উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের দাড়েরপাড়া গ্রামের মৃত সামু মণ্ডলের ছেলে।
এলাকাবাসী জানায়, মফিদুলের ছেলে সাগরের সঙ্গে একই গ্রামের জামালের ভাগনির ৬ বছর আগে বিয়ে হয়। ৫ মাস আগে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এ নিয়ে প্রায় দিন মফিদুলকে নানাভাবে হুমকি দিত জামাল, জাব্বার, সরিফুল, মহাবুলসহ তাদের লোকজন। তার এই ঘটনা ঘটাতে পারে।
দক্ষিণ দাড়েরপাড়ার মুদি দোকানি সাইফুল ইসলাম জানান, রাত অনুমানিক ১২টার সময় আমার সঙ্গে মফিদুল ভাইয়ের দেখা হয়। আমার সঙ্গে কথা বলে বাড়ির দিকে চলে যায়। আমার বাড়ি থেকে তার বাড়ি প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে।
মফিদুলের স্ত্রী আকলেমা খাতুন জানান, ছেলেকে নিয়ে ঝামেলা চলছিল। গত সোমবার ছেলেকে তুলে নিয়ে যায় জামাল, জাব্বার, সরিফুল, মহাবুল, সাইফুল, ফোরিদ, সেলিম, একতিয়ার, সাবদামসহ আর অনেকে। তারা ছেলেকে তুলে নিয়ে যায় ময়রামপুর গ্রামে।
তিনি আরও জানান, পরে পুলিশের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়। আমার স্বামী গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়, পরে আর বাড়িতে ফিরেনি। সকালবেলায় এলাকার মানুষ দেখলে বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে পুলিশ লাশ মর্গে পাঠায়। মহাবুল, সরিফুল ও জাব্বারের নেতৃত্বে আমার স্বামীকে কেটে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখে।
দৌলতপুর থানার ওসি নাসির উদ্দিন জানান, মফিদুল নামে এক ব্যক্তির রক্তাক্ত ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দুটি ধারালো ছুরি উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

Post a Comment

0 Comments