কুমারখালীতে ইউনিয়ন ও পৌর পর্যায়ে ৭ আগষ্ট থেকে করোনার টিকা প্রদান শুরু

মোশারফ হোসেন ॥ কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলায় ১১ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় প্রথম পর্যায়ে ২০ হাজার জনকে দেওয়া হবে সিনোফার্ম টিকা। ভোটার আইডি কার্ড প্রদর্শন অথবা অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে আগামী ৭ আগষ্ট টিকাদান শুরু করা হবে। ইতিমধ্যে ইউনিয়ন পর্যায়ের টিকাদানের জন্য কেন্দ্রের স্থান ও দিন তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কার্যালয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলায় আঠারোর্ধ্য মানুষের সংখ্যা প্রায় দুই লক্ষ ত্রিশ হাজার। প্রাথমিকভাবে বিশ হাজার জনকে দেওয়া হবে সিনোফার্ম করোনা টিকা।
প্রতিটি ইউনিয়নে প্রথম পর্যায়ে ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের বয়স্ক ও নারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়া হবে। ওয়ার্ড প্রতি ছয়শ করে প্রতি ইউনিয়নে এক হাজার আটশ জন পাবেন এটিকা। আর পৌরসভার প্রতি ওয়ার্ডে দুইশ করে মোট নয়টি ওয়ার্ডে মোট এক হাজার আটশ জন পাবেন টিকা।
আরো জানা গেছে, আগামী ৭, ৮ ও ১১ আগষ্ট (শনি, রবি ও বুধবার) জগন্নাথপুর ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে মহেন্দ্রপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে, সদকী ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে মালিয়াট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে, চর সাদিপুর ইউনিয়নের টিকা দেওয়া চাদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে, চাঁদপুর ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে কুশলীবাসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ও পান্টি ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে শেখ সদর উদ্দিন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় মাঠে।
আগামী ৭, ৯ ও ১০ আগষ্ট ( শনি, সোম ও মঙ্গলবার) শিলাইদহ ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে রবীন্দ্র মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে, চাপড়া ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে ছেঁউরিয়া জয়নাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে, যদুবয়রা ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে উত্তর চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে, কয়া ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে খলিশাদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে, নন্দনালপুর ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে চড়াইকোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ও বাগুলাট ইউনিয়নের টিকা দেওয়া হবে বাগুলাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে।
এতথ্য নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আকুল উদ্দিন বলেন, আগামী ৭ আগষ্ট থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে কোভিড- ১৯ এর সিনোফার্ম টিকা দেওয়া শুরু হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতি ইউনিয়নের তিনটি ওয়ার্ডের জন্য এক হাজার আটশ ও পৌরসভার প্রতি ওয়ার্ডের জন্য দুইশ করে মোট বিশ হাজার টিকা দেওয়া হবে। ইতিমধ্যে টিকাদানের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নার্স ও নির্ধারন করা হয়েছে স্থান গুলো।

Post a Comment

0 Comments