সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুর উপর উপচে পড়া ভিড়

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার সৈয়দ মাছ-উদ-রুমী সেতুর  উপর ঈদুল আযাহা উপলক্ষে হাজারো মানুষের ভিড়।  ব্রীজের উপর ঘুরতে আসা মানুষের কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে এতে করে ঘটতে পাড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
ব্রীজের উপর সকাল থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত আড্ডা দিচ্ছে উঠতি বয়সী যুবক যুবতীরা। ব্রীজের দুই পাশ দখল করে মটরবাইক, অটো রিকশা, সিএনজিসহ ব্যাক্তি গত গাড়ি রেখে যানজট তৈরির ফলে  বড় ধরনের দুর্ঘটনা আশংকা রয়েছে  ।
প্রতিনিয়ত  ঝুঁকি নিয়ে ব্রীজটি দিয়ে হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করছে। ব্রীজ পাশ কাটানোর সময় দুটি যানবাহনের মাঝে এক ফুটও ফাঁকা জায়গা থাকে না। ফলে বিপরীত দিক থেকে আসা যানবাহনকে জায়গা (সাইড) দেওয়ার সময় ঘটটে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এতে করে সবাইকে  থাকতে হয় চরম আতঙ্কে।
ট্রাক চালক ওয়াসিম বলেন,  ব্রীজের উপর মানুষের ভীড়ে প্রায় ঘটছে ছোট খাটো দুর্ঘটনা । ব্রীজের দুই পাশে মানুষ ও ছোট যানবাহন দাঁড়িয়ে থাকে।  সড়ক অপ্রশস্ত হওয়ায় বিপরীত দিক থেকে কোনো যানবাহন এলে  আতঙ্কে থাকে যানবহনের চালকরা। কারণ, চালক একটু অসতর্ক হলেই বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তাই এই অংশ দিয়ে ধীরে
ধীরে বাস চালাতে হয়।  এতে বেশি সময় লেগে যায়।
পদ্মা গড়াই পরিবহনের বাসের চালক রাজ্জাক বলেন। কয়েক বছর ধরে তিনি এই সড়কে গাড়ি চালাচ্ছেন। ব্রীজের উপর অতিরিক্ত মানুষ থাকার কারণে ধীর গতিতে বাস চলাচল করাতে হচ্ছে।  বিপরীত দিক থেকে আসা বাস ও ট্রাককে সাইড দেওয়ার জন্য গাড়ির এক পাশের চাকা সড়কের বাইরে রাখতে হয়। তিনি আরও বললেন, সড়কটিও উপর মানুষের ভীড় হাওয়ায় যে কোন মুহুর্তে  দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদের দিন বুধবার বিকেলে সড়ক জুড়ে মটরবাইক্, প্রাইভেট কার, সিএনজি, অটো রিকশা, ভ্যান ব্রীজের দুই পাশ দখল করে আড্ডা দিচ্ছে মানুষ। এখানে দুটি বাস একসঙ্গে পাশাপাশি চলতে পারে না।
আলাউদ্দিন নগরের বাসিন্দা হাবীব  বলেন, ব্রীজের উপর সকাল থেকে শুরু করে রাত অবধি মানুষের সমাগম ঘটে এখানে। ব্রীজের উপর উপর উঠতি বয়সী তরুণদের বেপরোয়া মটরবাইক্ চালাতে দেখা যায়। এই বিষয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দৃষ্টি দেওয়া জরুরি।
ঘুরতে আসা মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্য বিধি মানার বালাই নেই। অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্ক পড়তে দেখা যায়নি। গাদাগাদি করে অটোরিকশা, মটরবাইক্, ভ্যানে মানুষকে ব্রীজের উপর ঘুরতে দেখা গেছে।
কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, বিষয়টি জানতে পারলাম ব্রীজের উপর যানজট দৃষ্টি কারিদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এই বিষয়ে কুমারখালী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বিতান কুমার মন্ডল জানান, বিষয়টি নজরে এসেছে এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Post a Comment

0 Comments