কুমারখালীতে বিদায় বেলায় সাংবাদিকদের সাথে ইউএনও'র স্মৃতিচারণ

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে বিদায়বেলায় সাংবাদিকের সাথে এক মানবিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজীবুল ইসলাম খান স্মৃতিচারণ করেছেন। বুধবার বিকেল ৫ টায় থানামোড় সংলগ্ন গড়াই কমপ্লেক্সের নিচতলায় এ স্মৃতিচারণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত।
কুমারখালী প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও প্রবীণ সাংবাদিক বকুল চৌধুরীর সভাপতিত্বে স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন দৈনিক ভোরের ডাক পত্রিকার উপজেলা প্রতিনিধি মোশারফ হোসেন, চ্যানেল এস এর প্রতিনিধি মনোয়ার হোসেন। আজকের পত্রিকা ও দি বাংলাদেশ টুডে'র প্রতিনিধি মিজানুর রহমান নয়ন।
বিজয় টিভি'র স্টাফ রিপোর্টার তানভীর লিটনের সঞ্চালনায় এসময় বাংলা টিভির প্রতিনিধি এম এ উল্লাস, প্রভাতী খবরের উপজেলা প্রতিনিধি নয়ন শেখ, বর্তমান দিনের প্রতিনিধি কাজু আহমেদ, দৈনিক স্বদেশ বিচিত্রার প্রতিনিধি সবুজ হোসেন, দৈনিক দেশতথ্যের প্রতিনিধি সাব্বির হোসেন, বাংলা টিভির ক্যামেরা পার্সন হাসান আলী, ফটো সাংবাদিক সাকিব ফারহান সহ প্রমূখ।
স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে বিদায়বেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজীবুল ইসলাম খান বলেন, দক্ষতা না থাকা দোষের নয়, কিন্তু দক্ষ হওয়ার চেষ্টা না করা দোষ। কাজেই নিজের পেশাগত কাজে দক্ষতা অর্জনের চেষ্টা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, উপজেলায় কাজের ক্ষেত্রে সাংবাদিকের সার্বিক সহযোগীতা পেয়েছি। এখানকার সাংবাদিকরা চিরদিন স্মরণে থাকবে আমার।
বিদায়ী ইউএনও বলেন, সাংবাদিকদের সমাজের দর্পণ বলা হয়। তাদের মাধ্যমে সমাজের চিত্র ফুটে ওঠে। খুব ছোট বেলা থেকেই সংবাদ পত্রের প্রতি আমার ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে। অবসরের অধিকাংশ সময় আমার সংবাদ পত্রের সাথে কাটে।
এরআগে ইউএনও রাজীবুল ইসলাম খানকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান প্রবীণ সাংবাদিক বকুল চৌধুরী এবং অনুষ্ঠান শেষে তাকে সাংবাদিকের পক্ষ্যে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় সুত্রে জানা গেছে, গত ২০১৮ সালে ১৩ অক্টোবর কুমারখালীতে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই সুন্দর আচরণ, চমৎকার ব্যক্তিত্ব ও দক্ষ কর্ম দ্বারা উপজেলাবাসীর মন জয় করতে সক্ষম হন। এরপর মহামারী করোনায় অসামান্য ভূমিকা পালন করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন ইউএনও রাজীবুল ইসলাম খান।

 

Post a Comment

Previous Post Next Post