Header Ads

সেই বাংলাদেশি নারীর লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তের ওপার ভারত ভূ-খণ্ড থেকে রাশিদা খাতুন (৪১) নামে বাংলাদেশি নারীর লাশ উদ্ধারের ৪ দিন পর পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। মঙ্গলবার বিকেলে ১৫১/১৪ (এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন ভারতের চরমেঘনা সীমান্তে বিজিবি’র নিকট লাশ হস্তান্তর করে বিএসএফ।
এ সময় বিজিবি’র পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধীনস্থ প্রাগপুর কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার আমাজাদ হোসেন ও দৌলতপুর থানার উপ-পরিদর্শক জিয়াউর রহমান জিয়া। বিএসএফ’র পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার চরমেঘনা বিএসএফ ক্যাম্পের অধিনায়ক এসি বিমল কুমার, হোগলবাড়িয়া থানার ইন্সপেক্টর ফারুক হোসেন ও করিমপুর থানার ওসি পিন্টু সরকার। পরে নিহত রাশেদা খাতুনের লাশ বাংলাদেশে নেয়ার তার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করে বিজিবি।
উল্লেখ্য, দৌলতপুরের বিলগাথুয়া-জয়পুর সীমান্তের ১৫১/৭(এস) সীমান্ত পিলার সংলগ্ন ভারত ভূ-খণ্ডের কুড়মিপাড়া ভাদ্রিখোলা সীমান্ত এলাকার ধানখোলার পাশে নিহত বাংলাদেশি নারীর লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা ভারতের হোগলবাড়িয়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে হোগলবাড়িয়া পুলিশ নিহত নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের কৃষ্ণনগর জেলা সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। নিহত নারীর লাশ ফেরত চেয়ে বিএসএফ’র নিকট চিঠি পাঠায় বিজিবি। ঘটনার ৪ দিন পর মঙ্গলবার বিকালে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে রাশিদা খাতুনের লাশ ফেরত দিলো বিএসএফ।
স্বামী পরিত্যক্তা নিহত ওই নারী দৌলতপুর উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের গুড়ারপাড়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের মেয়ে। তিনি মৃগী রোগে আক্রান্ত ছিলেন বলে জানা গেছে। তবে কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে, নাকি হত্যা করা হয়েছে, তা জানা যায়নি। গত শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে রাশিদা খাতুন আর বাড়ি ফেরেনি বলে পরিবার সূত্র জানিয়েছে।

 

No comments

Powered by Blogger.