দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে মাদকের সঙ্গে করোনাও ঢুকছে

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল ॥ কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলা ভারত সীমান্তবর্তী। করোনার প্রকোপ দিনদিন বেড়ে চললেও নিরবে বসে রয়েছে জেলা প্রশাসন। খাতা কলমে এবং ভার্চ্যুয়াল সভায় স্বাস্থ্যবিধির উপরে কঠোর হওয়ার নির্দেশনা দিলেও তা বাস্তবায়নে কোনো নমুনা দেখা যাচ্ছে না। এদিকে নতুন আক্রান্ত রোগী এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে আগের চেয়ে। এছাড়া মাদক চোরাকারবারীদের রুট কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্ত। এই নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সচেতন মানুষ। সীমান্ত এলাকাবাসীর অভিযোগ, বিজিবি এবং স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের কিছু অসাধু ব্যক্তি এবং মাদক ব্যবসায়ীদের যোগসাজসে অবাধে আসতে পারে এই করোনা ভাইরাস।
দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে চোরাপথে বাংলাদেশিদের যাতায়াতের ফলে সীমান্ত এলাকায় করোনা সংক্রমিত হওয়ার শঙ্কা বেড়েছে বহুগুনে। সীমান্ত এলাকায় সীমান্তরক্ষী বিজিবির টহল জোরদার করা হলেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ ও বাড়তি কোনো নজরদারি না থাকায় এ আশঙ্কা আরও বেড়েছে।  গত এক সপ্তাহে চোরাকারবারী ও ভারতের কেরালায় যাতায়াতকারী বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে চোরাপথে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এরা সবাই দৌলতপুর সীমান্ত সংলগ্ন গ্রামের বাসিন্দা। এদের মধ্যে কেরালা ফেরত একজন চোরাপথে বাংলাদেশে প্রবেশকালে বিজিবি তাকে আটক করে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করেছে।
গত ২০ দিনে দৌলতপুর উপজেলার সীমান্ত সংলগ্ন পাকুড়িয়া ভাঙাপাড়ার ইছাহক আলীর ছেলে রিয়াজুল ইসলাম (৩০), মুন্সিগঞ্জের শুকুর আলীর ছেলে মতিউর রহমান মতি (২৭), মহিষকুন্ডি মাঠপাড়ার আসাদের ছেলে কালু (২৬) ও শাজাহানের ছেলে লিটনসহ (২৫) বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি গোপানে ভারত থেকে অবৈধভাবে চোরাপথে বাংলাদেশে প্রবেশ করে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। এদের মধ্যে ভারতের কেরালা থেকে চোরাপথে বাংলাদেশে প্রবেশকালে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর সীমান্ত থেকে গত ২১ মে বিদুছ মণ্ডল (৪০) নামে এক বাংলাদেশিকে আটক করে তার বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশের মামলা দিয়ে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করে রামকৃষ্ণপুর বিওপি’র বিজিবি। তিনি ভাগজোত এলাকার কাওছার মণ্ডলের ছেলে।
সীমান্ত সংলগ্ন রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজ মণ্ডল বলেন, চোরাপথে অবাধে বাংলাদেশিদের যাতায়াতের সুযোগ নেই। তবে মাদক চোরাকারবারীদের অবাধ যাতায়াত ও মাদক পাচার কারবার আগের মতোই চলমান আছে। কেরালা থেকে মোহাম্মদপুর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশকালে ভাগজোত এলাকার বিদুছ মণ্ডল নামে একজনকে বিজিবি আটক করে থানায় দিয়েছে।
দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন জানান, বিদুছ মণ্ডলের বিরুদ্ধে বিজিবির পক্ষ থেকে অবৈধভাবে ভারতে যাওয়ার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে।
৪ জুন শুক্রবার কুষ্টিয়া জেলায় করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৩৭ জন। এরমধ্যে দুইজন মারা গেছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ১১৬ জনে।
জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ মে থেকে কুষ্টিয়ায় সংক্রামণের হার বাড়ছে। ২৫ মে নমুনা পরীক্ষার ৯ দশমিক ২৭ শতাংশ রোগী পজেটিভ ছিল। যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬ দশমিক ৯৫ শতাংশ।
এদিকে ভারত থেকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় কুষ্টিয়ায় ফিরেছেন ১৪৭ জন। তাদের মধ্যে তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে।
কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জানান, করোনা প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় জরুরি মিটিং করা হয়। সেখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য আহ্বান জানানো হয়। সেই সঙ্গে মাস্ক পরিধান এবং সরকারি নির্দেশনা নিশ্চিতে সংশ্লিষ্টদের কঠোরভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments