মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবা ও জামাইকে বেদম প্রহার

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবা, জামাই ও মেয়েকে বেদম প্রহারের অভিযোগ উঠেছে। মেয়ের বাবা কিয়ারুল আলী বাদী হয়ে ভেড়ামারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
গতকাল শনিবার রাত ৮ টার দিকে চেয়ারম্যান মোড় সংলগ্ন জিকে ২ নং কলোনির গেটের সামনে অবস্থিত ফুডল্যান্ড ক্যাফের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন।
কিয়ারুল আলী নওদাপাড়া গ্রামের মৃত মনছুর আলী মন্ডলের ছেলে।
এ ঘটনার বিষয়ে অভিযোগ কারী ও আহত কিয়ারুল আলী জানান শনিবার রাত অনুমান ৮ টার দিকে চেয়ারম্যান মোড় সংলগ্ন জিকে ২ নং কলোনির গেটের সামনে অবস্থিত ফুডল্যান্ড ক্যাফেতে যাই। সেখানে নওদাপাড়ার পিন্টু মেকারের ছেলে রাফি মোঃ সেজান(২৫), সোহাগ(৩০)। নাইম(২৫), মিন্টু ঘোষের ছেলে সাকলাইন(২৩), নবীরের ছেলে সুমন(২৫), আজিমের ছেলে বিপ্লব সহ চাঁদগ্রাম ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামের আরও ৮/১০ জন যুবক আমার মেয়ে ও জামাই কে অভদ্র ভাষায় কথা বলতে থাকে। নিষেধ করলে গালিগালাজ ও উত্যক্ত করা বাড়িয়ে যায়। আমার জামাই মোকাদ্দেস হোসেন ও মেয়ে আফিয়া তাসনিম মিম প্রতিবাদ করলে অভিযুক্তরা জামাই কে বেদম মারপিট করে। এসময় মেয়ে ঠেকাতে গেলে তাঁকেও মারধর করে ও গায়ে থাকা সোনার ৩ ভরি স্বর্নের গহনা ও ৩টি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। পরে রাস্তার উপরে চলে আসার পথে আবারও মারধর করে। এক পর্যায়ে তাঁরা আমার মেয়েকে উঠিয়ে নিয়ে যেতে চেষ্টা করে। এ খবর জানতে পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এসময় আমার উপর তাঁরা ঝাপিয়ে পড়ে বেদম মারপিট করে। চলে যাওয়ার পুর্বে হুমকি দেয় বেশি কিছু করার চেষ্টা করলে তাঁরা আমাকে প্রাণে মেরে ফেলবে। এ বিষয়ে ভেড়ামারা থানায় রাতেই আমি বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। কিয়ারুল আরও উল্লেখ করেন আমার মেয়ের বিয়ের
পুর্বে রাফি মোঃ সিজান নামে ১নং অভিযুক্ত প্রেমের প্রস্তাব সহ নানা ধরনের কথা বলে মেয়েকে উত্যক্ত করতো।
এ ঘটনার অভিযোগে মামলা রুজু হয়েছে কিনা, ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহজালালের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি তদন্তের জন্য এক পুলিশ কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সত্যতা নিশ্চিত হলে মামলা রুজু করা হবে।

Post a Comment

0 Comments