ভেড়ামারা প্রেসক্লাবে আব্দুল আজিজ দিং এর উদ্যোগে সাংবাদিক সম্মেলন

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ শুক্রবার বিকালে সন্ধ্যায় ভেড়ামারা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন ডিগ্রিধারী আদেশ পাওয়া জমি দখল পাওয়ার ১দিন পরেই আদালতের রায় অমান্য করে জোরপূর্বক আবারও জমি দখল করেন।। সম্পূর্ণ লিখত বক্তব্যে তুলে ধরা হলো: সুধী, সাংবাদিকবৃন্দ, আচ্ছালামু আলাইকুম। কুষ্টিয়ার বিজ্ঞ ভেড়ামারা সহকারী জজ আদালতের দেং জারী ৫/১৫নং মামলার তপশীল বর্ণিত জমির এস,এ খতিয়ান নং- ২১৯, আর,এস খতিয়ান নং- ১৪, সাবেক দাগ নং- ২৭৬ এবং হাল দাগ নং- ৭৯৯, অত্র দাগের ১.৩০০৬ একর জমির দক্ষিন আইল সীমানায় .০৭একর নালিশী জমির দখল ডিক্রীদারকে বুঝে দেওয়ার জন্য গত ইং ২১/০৩/২০২১ তারিখ রোজ রবিবার বেলা অনুমান ১.০০ঘটিকার সময় নাজির জনাব আলাউদ্দিন, ২জন জারীকারক মোঃ জসিম উদ্দিন ও মোঃ সহিদুর রহমান, পুলিশ স্কট পাটি ১০জন পুলিশ কনস্টেবল, ২জন এ.এস.আই ও ১জন এস.আই জনাব জিল্লাুর রহমানসহ বিজ্ঞ এ্যাডভোকেট কমিশনার, বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট বেঞ্চ সহকারী, ঢুলি নিতাই দাসের ঢোল বাদ্য মহরত দ্বারা উক্ত .০৭ একর নালিশী সম্পত্তি এ্যাডভোকেট কমিশনারের ফিতা চিহ্নিত ও মাপজোক অন্তে সিমানা নির্দ্ধারনের পর .০৭একর বিবাদীদের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ পূর্বক বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট সাহেবের নির্দেশে উক্ত নালিশী সম্পত্তির চৌহদ্দী ও সীমানা ও মাঝখানে ১খন্ড বাঁশ করত অবস্থিত লাল চিহ্নিত কাপড় বাধিয়া দিয়া দখলীয় পরওয়ানার মর্ম উচ্চস্বরে পাঠ পূর্বক প্রচার করিয়া সর্ব সাধারনকে অবগত করাইয়া দিয়া অন্যের বিনা বাধায় ডিক্রীদার নিশানদার মোঃ আব্দুল আজিজকে দখল বুঝাইয়া দিলে দখলীয় পরওয়ানার পৃষ্টে সহি করিয়া দখল বুঝিয়া পাইলে পরে ম্যাজিষ্ট্রেট মহোদয় এ্যাডভোকেট কমিশনার ও মোকাবেলা লোকজন, ঢুলি পৃথক পৃথক ভাবে সীল ও স্বাক্ষর করিয়া দখলী কাম সমাপ্ত করিয়া চলিয়া গেলে পরের দিন ২২/০৩/২০২১ তারিখ সোমবার বুলডোজার দিয়ে অবৈধ স্থাপনা ভাংচুর ও স্থাপনা উচ্ছেদ করে প্রকৃত জমির মালিকদের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটসহ অভিযানের টিম নালিশী জমি বুঝিয়া দেয়। কিন্তু পুনরায় প্রভাব বিস্তার করে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে উদ্ধারকৃত জায়গা পুনরায় প্রাচীর ও ঘর নির্মাণ করে অবৈধভাবে দখল করে নেয়। অবৈধ দখলকারীরা হলো- আওয়ামী যুবলীগের ভেড়ামারা উপজেলার সভাপতি ও ইউসুফ এর ছেলে শামীম, রবি, আক্তার হাজী, রুবেল অটো, শিরাজ, জহুরা খাতুন, মোহম্মদ আলী ডাল মিল, ফজলু। উল্লেখ থাকে যে, সরকারী খাদ্য গুদামের বাউন্ডারীর মধ্যে রয়েছে ১৮ফিট এবং বিভিন্ন দোকানের মধ্যে রয়েছে ৪ফিট, সর্বমোট .০৭একর।  এ রকম অরাজকতা যে আদালতের দখলী পরোওয়ানা হস্তক্ষেপ করায় সাংবাদিক সম্মেলন’র মাধ্যমে বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরলাম।
নিবেদক-
আব্দুল আজিজ দিং। (আতিয়ার রহমান, টোকন, নজরুল ইসলাম,বক্কার) ভেড়ামারা,কুষ্টিয়া।

Post a Comment

0 Comments