Header Ads

স্বাধীনতা দিবসে বিজিবি-বিএসএফের মৈত্রী ফুটবল

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও জোরদার করতে কুষ্টিয়া বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) মধ্যে মৈত্রী ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৬ মার্চ) বিকেলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়ার করিমপুর থানার শিকারপুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলমাঠে এ খেলা হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে মৈত্রী ফুটবল খেলা হয়েছে। এ আয়োজনে বিএসএফের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ইন্টার্ন কমান্ডার ইন্সপেক্টর জেনারেল পিএস বাইনস।
খেলায় কুষ্টিয়া অঞ্চলের বিজিবি-৪৭ ব্যাটালিয়ন একাদশ নদীয়া জেলার ৩৯ বিএসএফ একাদশের কাছে ৩-০ গোলে পরাজিত হয়েছে। খেলা চলাকালে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
বিজিবি-৪৭ ব্যাটালিয়ন কুষ্টিয়া সেক্টর সূত্রে জানা গেছে, দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও জোরদার করতে বিএসএফের ৩৯ কমান্ডের আমন্ত্রণে শুক্রবার ভারতের শিকারপুর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ফুটবল খেলা হয়। এর আগে বিজিবি ব্যাটালিয়ন ফুটবল একাদশ ভারতে যায়।
বিকেল সোয়া চারটার দিকে খেলা শুরু হয়। সীমান্তবর্তী কয়েক হাজার ভারতীয় দর্শক খেলা উপভোগ করেন। সন্ধ্যা ছয়টার দিকে খেলা শেষ হয়। এতে বিএসএফের কাছে ৩-০ গোলে বিজিবির দল হেরে যায়।
দুই দেশের জাতীয় সংগীত বাজিয়ে খেলা শুরু হয়। অনেকগুলো গোল সেভ করায় বিজিবির গোলরক্ষক আকাশ আলী ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন। খেলা শেষে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়। করোনাভাইরাসের কারণে ২০২০ সালে এই খেলা বন্ধ ছিল। আর ২০১৯ সালে হয়েছিল সীমান্তের বাংলাদেশ প্রান্তে।
খেলা শুরুর আগে বাংলা ও হিন্দি ভাষায় নাচ-গান পরিবেশন করা হয়েছে। ছিল ডগ স্কোয়াডের বিশেষ শো। এসব দেখতে আসেন বাংলাদেশ ও ভারতের অনেক দর্শক। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে ফুটবল খেলার এই আয়োজন ঘিরে উৎসব জমে ওঠে।
কুষ্টিয়া সেক্টরের বিজিবি-৪৭ ব্যাটালিয়ন কমান্ডার কর্নেল জিয়া সাদাত খান বলেন, মূলত দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে ভ্রাতৃত্ব আরও সুদৃঢ় করতে খেলার আয়োজন করা হয়। বিএসএফের আমন্ত্রণে এই মৈত্রী ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

No comments

Powered by Blogger.