বাড়ির পাশে ময়লার স্তূপ থেকে স্ত্রীর লাশ উদ্ধার ॥ স্বামী পলাতক


চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে রেশমা খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের হোগলা গ্রামে বসতঘরের পাশের ময়লার স্তূপ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী সুমন হোসেন (২৮) পলাতক।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, এক বছর আগে হোগলা গ্রামের সুমন হোসেনের সঙ্গে কুমারখালী পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রিফাজ উদ্দিনের মেয়ে রেশমার বিয়ে হয়। দুই দিন ধরে রেশমা নিখোঁজ ছিলেন। আজ দুপুরে স্বজন ও প্রতিবেশীরা দুর্গন্ধ পেয়ে রেশমাকে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে সুমনের বসতঘরের পাশে ময়লার ভেতর থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে বলে তাঁরা নিশ্চিত হন। পরে সেখানে মানুষের হাতের তিনটি আঙুল দেখতে পেয়ে তাঁরা পুলিশে খবর দেন। কুমারখালী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করে। মরদেহটি রেশমার বলে শনাক্ত করেন তাঁর ভাই সুজন হোসেন। লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ। বসতঘরের পাশের ময়লার স্তূপ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী সুমন হোসেন পলাতক।

নিহতের ভাই সুজন হোসেন বলেন, স্বামীর বাড়ি থেকে তাঁর বোন নিখোঁজ হওয়ার পর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাননি। পরে আজ দুপুরে লোকমুখে শুনতে পান, ভগ্নিপতি সুমনের বাড়ির পেছন থেকে মৃত অবস্থায় তাঁর বোনকে পাওয়া গেছে। সুজন বলেন, তাঁর বোনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার চান।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে। স্বামী পলাতক। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Post a Comment

0 Comments