১০ বছরে ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছি : ভেড়ামারা পৌর বর্তমান মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা


চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভার পরপর ২ বার মেয়র পদে নির্বাচিত, বর্তমান পৌরসভার মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সমাজ সেবক আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা নৌকা প্রর্তীকে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১০ বছরে প্রায় ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন করেছে বলে দাবী করেন। আপানাদের ভোটে নির্বাচিত হলে আমার নেতা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফের সার্বিক তত্ববাধয়নে ভেড়ামারা পৌরসভাকে ৩৭ টি প্রকল্প ৩০ কোটি টাকা কাজ করে পৌরসভা আধুনিক মডেল পৌরসভা গড়ে তুলবো ইনশাল্লাহ।

এলাকার সামগ্রিক উন্নয়ন আর গণমানুষের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রেখে আগামী ১৬ই জানুয়ারি’২১ শনিবার অনুষ্ঠিতব্য পৌর নির্বাচনে সকলের নিকট দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন। ভেড়ামারা পৌরসভার পরপর ২ বার মেয়র পদে নির্বাচিত, বর্তমান পৌরসভার মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সমাজ সেবক আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা প্রথম নির্বাচিত হন ২০১১ সালে, দ্বিতীয় বার নির্বাচিত হন ২০১৫ সালে ডিসেন্বর। এবারো তিনি ৩ম বারের মত মেয়র নির্বাচিত হবেন বলে আশাবাদী। 

ভেড়ামারা পৌরবাসীর হৃদয়ের ভালবাসার নাম মেয়র ছানা। ভেড়ামারা পৌরবাসীর হৃদয়ের ভালবাসার নাম জননন্দিত পৌর মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা। বিপদে আপদে পৌরবাসী আপন মনে যাকে সব সময় কাছে পাই সেই প্রিয় মেয়র ছানাকে। তিনি পৌরবাসীর সেবক হিসেবে জনগনের সেবাই নিয়োজিত আছেন।

পৌরবাসীর ভাবনা বর্তমানে মেয়র ছানা যেভাবে জনগনের সেবা ও এলাকার উন্নয়ন করে যাচ্ছেন আগামীতেও যেন পৌরবাসীর সেবা ও এলাকার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে পারে সেই জন্য আমরা পৌরবাসী আসন্ন পৌর নির্বাচনে মেয়র ছানাকে আবারও বিজয়ী করবে। পৌরবাসীর ভালবাসায় সিক্ত হয়ে গত দুটি পৌর নির্বাচনে দুই দলের দুই হেভিওয়েট প্রার্থীকে পরাজিত করে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন ছানা। 

নির্বাচনকে সামনে রেখে  পৌর এলাকার সব বয়সী মানুষের মুখে মুখে একাটাই নাম পৌর এলাকার উন্নয়নের রুপকার মেয়র ছানা। পৌরবাসীর সেবক ও আস্থার প্রতীক দুই অক্ষরের নাম যার সে হলো পৌরবাসীর হৃদয়ের ভালবাসার মানুষ মেয়র ছানা।সে আবারও ৩য় বার মেয়র নির্বাচিত হয়ে হ্যাট্রিক করবেন বলে পৌরবাসী মনে প্রানে বিশ্বাস করেন। সে ভেড়ামারা উপজেলা আওয়ামীলীগের দুইবারের কর্মীবান্ধব সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার বারবার নির্বাচিত জনপ্রিয় মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা। পৌরবাসী মনে করেন ছানার  বিকল্প শুধু ছানাই।

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা ৩য় বারের মত মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা ৩য় বারের মত মেয়র নির্বাচিত হবেন বলে পৌরবাসীর দাবী। ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা পৌর উন্নয়নে যে বিশার কর্মযজ্ঞ হাতে নিয়েছি, উন্নয়নের সেই ধারাবাহিকতা রক্ষায় স্বার্থেই আসন্ন নির্বচনে নৌকার বিজয়ের কোন বিকল্প নেই। 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  ও কুষ্টিয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব-উল আলম হানিফ এর ডিউ লেটারের মাধ্যামে প্রকল্প পরিচালক ডিআই আর আই পি, এলজিইডি সদ দপ্তরের ৩৭ প্রকল্পের জন্য ৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করেছি। শীঘ্রই প্রকল্প অনুমোদন হবে আশা করি। ইতিপূর্বে পৌরসভার ২ মেয়াদে দায়িত্ব পালন করায় সময় প্রায় ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করেছি। আপানাদের ভোটে নির্বাচিত হলে ভেড়ামারা পৌরসভা কে ৩৭ টি প্রকল্প ৩০ কোটি টাকা কাজ করে পৌরসভা আধুনিক মডেল পৌরসভা গড়ে তুলবো ইনশাল্লাহ।

১৯৮৪ সালে মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা ছাত্র রাজনীতিতে পদার্পন করেন। তার সততা, দক্ষতা ও সাহসিকতা এবং নেতৃত্বগুণ তার রাজনীতিতে পরিপূরক হিসাবে কাজ করে। তার মধ্যে অলৌকিক কিছু গুন থাকায় মানুষের কাছে তার গ্রহনযোগ্যতা অসীম। তখনকার সময়ে তিনি একজন দাপুটে ছাত্র নেতা হিসাবে আর্বিভূত হন। নেতৃত্বগুণ থাকায় ছাত্রদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা ও গ্রহনযোগ্যতা বৃদ্ধি পায়। এর ফল পেতে বেশি দিন সময় লাগেনি তার। 

১৯৯২সালে ভেড়ামারা কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে জিএস পদে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন। তখন তিনি একজন নেতৃত্বগুণ সম্পন্ন দাপুটে ছাত্রনেতা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেন। ছাত্রদের অধিকার আদায়ে তিনি ছিলেন আপোষহীন। সে সময় তিনি অসহায় ও দূর্বলদের প্রতি উদার মনোভাব ও পরোপকারী ছিলেন। একটি ঘটনায় উল্লেখ, ভেড়ামারা কলেজের কয়েকজন ছাত্র টাকার অভাবে পরীক্ষার ফরম পূরন করতে না পেরে ছাত্ররা তার কাছে আসেন, এসময় তার কাছে টাকা না থাকায় আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা তার হাতে আঙ্গুলে থাকা খুবই প্রিয় একটি সোনার আংটি খুলে তাদেরকে দিয়ে দেন, এই ঘটনার ঐ স্মৃতি এখনও উজ্জল এই প্রতিবেদকের কাছে। তার এমন গুণ থাকায় তার সময়কালে এতো জনপ্রিয় ছাত্রনেতা ঐসময় দ্বিতীয়টি গড়ে উঠেনি। পরবর্তীতে ২০১২ সালের ১৬ই জুন বাংলাদেশের জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ভেড়ামারা উপজেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হন। তার নেতৃত্বে ধীরে ধীরে বিকশিত হয় আওয়ামীলীগ। 

উপজেলার প্রতিটি গ্রামে আওয়ামীলীগকে গণমানুষের প্রিয় দলে পরিণত করেন। তিনি দ্বিতীয় বারের মত ২০১৯ সালের ৫ই নভেম্বর মাসে আওয়ামীলীগের উপজেলা কাউন্সিলের মাধ্যমে আবারও অপ্রতিদ্বন্দী হিসাবে সাধারন সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হন। আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার আগেই পৌর নির্বাচনে ২০১১সালে ১৩ই জানুয়ারী ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র হিসাবে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। রেকর্ড দ্বিতীয় বারে আবারও তিনি ২০১৫ সালের ৩০ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিপুল ভোটে জনপ্রিয় ও জননন্দিত পৌর মেয়র হিসাবে পুনরায় নির্বাচিত হন আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা। দুটি নির্বাচনেই তিনি চরম প্রতিকুলতার মধ্যে নির্বাচন করে জয় লাভ করেন। এ যাবৎ কালে ভেড়ামারা পৌরসভার নির্বাচনে পর পর ২বার মেয়র হিসাবে নির্বাচিত হতে পারেনি কোন ব্যক্তি। পৌরবাসীর আকাঙ্খীত নেতৃত্বগুণ সম্পন্ন ব্যক্তি হিসাবে তিনি ২ বার নির্বাচিত হয়ে প্রমাণ করলেন পৌরবাসীর সফল পৌর পিতা আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা। 

পৌর পিতা করোনা জয়ী মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা বয়সে এখনও অনেকটাই তরুণ, আগামীতে অপেক্ষা করছে স্বপ্নের ভেড়ামারা পৌরসভা গঠনে তার ক্যারিশমেটিক কাজ। সাধারন এক কিশোর বালক থেকে আজ তিনি অসাধারন, ব্যক্তিত্বগুণ সম্পন্ন ভেড়ামারা পৌরসভার সফল, জননন্দিত, জনপ্রিয় ও ক্যারিশমেটিক মেয়র হিসাবে পরিচিতি পেয়েছেন। তিনি একের পর এক জয় করে নিজেকে পরিণত করেছেন। তিনি প্রমাণ করেছেন আমি জনগণের। সর্বশেষ করোনা কে জয় করে আবারও প্রমাণ করলেন আল্লাহ ও জনগণ তাকে কতোটা ভালোবাসে। তাই ভেড়ামারাবাসী করোনার বিরুদ্ধে এই ফ্রন্টলাইন যোদ্ধা করোনা জয় করায় মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানাকে স্যালুট ও হর্ষধ্বনির সাথে করতালি দিয়ে বরণ করে নিয়েছেন। 

Post a Comment

0 Comments