সামিউল হত্যায় পরকীয়া প্রেমিকসহ মায়ের মৃত্যুদণ্ড

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ রাজধানীর আদাবরে পরকীয়ার জেরে শিশু খন্দকার সামিউল আজিম ওয়াফিকে (৫) হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তার মা এশা ও এশার প্রেমিক বাক্কুর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।
রোববার ঢাকার বিশেষ জজ-৪ শেখ নাজমুল আলম এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।
গত ২৩ নভেম্বর এই মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়। শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে উভয় আসামির সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড চায়। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) ফারুকুজ্জামান ভূঁইয়া।
মামলার অভিযোগ ও অভিযোগপত্র অনুযায়ী, মায়ের সঙ্গে আরেকজনের সম্পর্ক দেখে ফেলায় ২০১০ সালের ২৩ জুন সামিউলকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় সামিউলের বাবা কে আর আজম বাদী হয়ে আদাবর থানায় হত্যা মামলা করেন।
মামলাটি তদন্ত করে পরের বছরের ২৫ অক্টোবর হুমায়রা ও শামসুজ্জামানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। ২০১২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষ ২২ জন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করে।

Post a Comment

0 Comments