স্ত্রী-সন্তানকে না পেয়ে আদালত চত্বরেই আত্মহত্যা

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ হবিগঞ্জে মামলা করেও স্ত্রী-সন্তানকে ফিরে না পাওয়ার ক্ষোভে আদালত চত্বরেই বুকে ছুরিকাঘাত করে আত্মহত্যা করেছেন এক যুবক। সোমবার বিকেলে হবিগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ ঘটনা ঘটে। এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী।
নিহত যুবক হাফিজুর রহমান শহরের কামড়াপুর গ্রামের বসিন্দা নূর মিয়ার ছেলে। তিনি পরিবার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে শহরতলীর সুলতান মাহমুদপুর গ্রামে নানার বাড়িতে বসবাস করছিলেন।
ওসি মো. মাসুক আলী জানান, হাফিজুর কয়েক বছর আগে বানিয়াচং উপজেলার খাগাউড়া গ্রামের আব্দুল খালেকের মেয়ে বুশরা বেগমকে বিয়ে করেন। তাদের একটি সন্তান রয়েছে। পারিবারিক বিষয়া নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য হলে এক পর্যায়ে বুশরা বাবার বাড়ি চলে যান। পরে স্ত্রী ও সন্তানকে পাওয়ার জন্য আদালতের দ্বারস্থ হন হাফিজুর।
ওই মামলায় সোমবার দুপুরে আদালতে হাজির হয়ে বুশরা স্বামীর সঙ্গে ফিরবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তাকে বাবার জিম্মায় যাওয়ার আদেশ দেন। এরপর আদালত থেকে বেরিয়েই হাফিজুর নিজের বুকে ছুরি চালিয়ে দেন।
রক্তাক্ত শরীরে আদালত চত্বরে লুটিয়ে পড়েন হাফিজুর। গুরুতর অবস্থায় উপস্থিত লোকজন তাকে সদর হাসপাতালে পাঠান। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে রেফার করেন চিকিৎসকরা। সেখানে নেয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

Post a Comment

Previous Post Next Post