Header Ads

কুমারখালীতে বড় ভাইয়ের জমি ছোট ভাই বিরুদ্ধে জোর পূর্বক দখলে নেওয়ার অভিযোগ

কুমারখালী প্রতিনিধি \ কুমারখালী উপজেলার সদকী ইউনিয়নের বানিয়াকান্দি গ্ৰামের  মনছের আলী শেখ এর পুত্র মোঃ নিজাম শেখ এর ফসলি জমি মৌজা বানিয়াকান্দী,আর,এস, দাগ নং- ৬০ নং দাগের ধানী জমি, জমির পরিমাণ-২১ শতাংশ। ফসলি জমি জোর পূর্বক বড় ভাইয়ের জমি ছোট ভাই বিরুদ্ধে দখলের নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জমির বর্তমান মালিক,  নিজামের অভিযোগ আমার পিতা মোঃ মনছের আলী মৌখিক ভাবে বাৎসরিক ৩ হাজার টাকা দরে আমার চাচা মোঃ শসছের আলী কাছে জমি চর্চা রাখে। প্রায় ৩ বছর আগে উক্ত জমি আমার পিতা আমার নামে রেজিষ্ট্রি করে দেন। যাহার  দলিল নং -৪১৭১, তারিখ ১৭/০৯/২০১৭ ইং। পরবর্তীতে উক্ত জমি আমি  শসছের আলী কে ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলিলে তিনি জানান যে, তিনি উক্ত জমির মালিক। আমি তার কাছে জমির কাগজপত্র চায়, কিন্তু কোন মালিকানা কাগজ পত্র দেখাতে পারেন নাই আমার চাচা।গত ইং ২১/১২/২০২০ তারিখে সকাল অনুমান ৯ ঘটিকার সময় মোঃ আজাদ শেখ (৩০) পিতা- মোঃ শসছের আলী শেখ, মোঃ শামসুদ্দীন শেখ (৫০) পিতা- মৃত হায়দার আলী, মোঃ আনছার আলী শেখ, (৭০) পিতা- মৃত হায়দার আলী শেখ, মোঃ বিল্লাল শেখ(৪০),মোঃ জয়নাল শেখ,(৩৮) উভয় পিতা- মোঃ আনছার আলী শেখ,  সর্ব সাং- বানিয়াকান্দি। এরা পরস্পর যোগসাজশে  হাসুয়া ,ছোরা, লোহার রড ও বাঁশের লাঠি ইত্যাদি অস্ত্রে সজ্জিত হইয়া আমার বানিয়াকান্দি তফসিল বর্ধিত জমিতে জোর করে প্রবেশ করে এবং জোর পূর্বক ভোগ দখলের চেষ্টা চালায়।
আমি বাধা দিলে বিবাদীগন আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং বিভিন্ন ধরনের ভয় ভীতি ও প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। এই বিষয়ে কুমারখালী থানার একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জোর করে জমি দখল নেওয়ার  বিষয়ে আজাদ শেখ ও মোঃ শসছের আলী শেখ বলেন, আমার ভাই মনছের আলী আমার কাছ থেকে ৭০ হাজার টাকার বিনিময়ে জমি বিক্রি করেছে।  সেই জন্য আমি বানিয়াকান্দি মৌজার দাগ নং -৬০ জমির পরিমাণ ২১ শতাংশ দখল করে নিয়েছি‌‌। এই জমি আপনার তার  কোন কাগজপত্র সম্পর্কে  জানতে চাওয়া হয়। প্রশ্ন করা হয় আপনার কোন লেখিত  দলিল বা কোন লেখিত ডকুমেন্ট আছে, এই সময় তিনি জানান আমার কোন ডকুমেন্ট বা কোন লেখিত কাগজ নেই। এলাকার বাসিন্দা সাইদুল  বলেন এই জমি মনছের আলীর এখন তার ছেলে নিজাম কে দলিল করে দিয়েছে। ৭০ হাজার টাকা নেওয়ার ব্যাপারে মনছের বলেন, আমি চর্চা হিসেবে ৩-৪ বছরের টাকা নিয়েছিলাম কিন্তু এখন জমি ফেরত চাওতে শসছের ঐ জমি নিজের দাবি করছে। এই জমির মালিক এখন নিজাম। কিন্তু জোর করে শসছের ও তার ছেলেরা  জমিতে গম বুনে নিজেদের দাবি করছে। বিষয়টি কুমারখালী থানা ইনচার্জ মজিবুর রহমান জানান এই ঘটনায় একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। জমি দখলের ঘটনায় নিজাম শেখের পরিবার আতংকের মধ্যে রয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.