ডায়ানার সাক্ষাৎকারের ২৫ বছর পরও বিতর্ক

চেতনায় কুষ্টিযা প্রতিবেদক \ ১৯৯৫ সালে বিবিসিতে প্রচারিত প্রিন্সেস ডায়ানার একটি সাক্ষাৎকার সারা পৃথিবীতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল, তাতে বেরিয়ে এসেছিল প্রিন্স চার্লসের সাথে তার দাম্পত্যজীবন ভেঙে পড়ার পেছনের কাহিনি। ২৫ বছর পর সাক্ষাৎকার গ্রহণকারী সাংবাদিক মার্টিন বশিরকে নিয়ে অভিযোগ এবং বিতর্কের মুখে আবারো আলোচনায় ডায়ানা। আলজাজিরা, বিবিসি।
 অভিযোগ উঠেছে, সাক্ষাৎকার গ্রহণকারী সাংবাদিক মার্টিন বশির ভুয়া কাগজপত্র দেখিয়ে ওই সাক্ষাতকার নিয়েছিলেন। অভিযোগটি তুলেছেন ১৯৯৭ সালে প্যারিসে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া প্রিন্সেস ডায়ানার ভাই আর্ল স্পেন্সার। তিনি বলছেন, বিবিসির সাংবাদিক মার্টিন বশির কিছু জাল ব্যাংক দলিলপত্র দেখিয়ে ‘অত্যন্ত অসৎ পন্থা ব্যবহার করে’ তার বোনকে ওই সাক্ষাৎকার দিতে রাজি করিয়েছিলেন।
অভিযোগ এবং বিতর্কের মুখে সেই সাক্ষাৎকার নিয়ে এবার তদন্ত করার ঘোষণা দিয়েছে বিবিসি। কী উপায়ে বিবিসি ওই সাক্ষাৎকার পেয়েছিল, এবং বিবিসির তখনকার সিদ্ধান্ত-গ্রহণকারী ব্যক্তিরাই বা কী ভুমিকা পালন করেছিলেন তা খতিয়ে দেখা হবে তদন্তে। সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি লর্ড ডাইসন এক স্বাধীন তদন্ত প্রক্রিয়ার নেতৃত্ব দেবেন।
ডায়ানার বড় ছেলে ডিউক অব কেমব্রিজ প্রিন্স উইলিয়াম এ তদন্তকে ‘সঠিক পথের একটি পদক্ষেপ’ বলে বর্ণনা করেছেন।
সম্প্রচারমাধ্যম বিবিস এবং সাংবাদিক বশির যেসব পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তা যথাযথ ছিল কিনা এবং তাদের কার্যকলাপের ফলে ডায়ানা সাক্ষাৎকার দিতে চাপে পড়েছিলেন কিনা এসব বিষয় তদন্তে খতিয়ে দেখা হবে।
ডেইলি মেইলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডায়ানার ভাই স্পেনসার আরও অভিযোগ করেন, প্যানারোমার রিপোর্টার বশির তার সঙ্গে বৈঠকে রাজপরিবারের একাধিক জ্যেষ্ঠ সদস্যের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ ভুয়া ও মানহানিকর অভিযোগ তুলে ধরেন। ডায়ানার কাছে পৌঁছাতে নিজেকে আরও বিশ্বস্ত হিসেবে তুলে ধরতেই এসব কাজ করেছিলেন বশির। ডায়ানার ব্যক্তিগত চিঠি খুলে ফেলা, গাড়ি বহরে নজরদারি এবং ফোনে আড়িপাতার মতো মিথ্যে তথ্য দিয়েছিলেন বশির।

 

Post a Comment

0 Comments