ভেড়ামারার চাঁদগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও সংগ্রামী-প্রতিবাদীর নাম আনোয়ার হোসেন গামা

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ চরম দুঃসময়ে দলের কান্ডারী হয়ে শুধু ছিলেন না, শাষকের সেবকদের আক্রোশের শিকার হতে হয়েছে। তার উপর  হামলা-মামলা হয়েছে। অসংখ্য বার বাড়ি ছাড়া হতে হয়েছিল। তবুও সে সময় আলোচিত ট্রিপল হত্যা মামলার বাদী থেকে নাম বা মামলা  প্রত্যাহার করেননি। এভাবে বলা যায়, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের দোষররা  তাকে আপোষ করাতে না পেরে ব্যার্থ হয়েছিল। কারণ দলের আদর্শ, নীতির কাছে  আপোষহীন থাকার কারনে। সে, দল কে এ পর্যন্ত যা দিয়ে এসেছে তার সাথে  তুল্য আর কেউ কি আছে চাঁদগ্রাম ইউনিয়নে? এমন প্রশ্ন দুঃসময়ের দলের নেতা-কর্মীদের। বলছি তার কথা, যে দুঃসময়ের পরিক্ষীত, বঙ্গবন্ধুর আর্দশের সৈনিক, তরুণ প্রজম্মের কাছে তিনি একজন আদর্শের যুবনেতা। কর্মীবান্ধব শুধু নয়, সকল শ্রেণীপেশার মানুষের সাথে যার নিবিড় সম্পর্ক। চাঁদগ্রাম ইউনিয়ন বাসীর কাছে আস্থা ও ভালোবাসায় যার অবস্থান সুসংহত। সে সকলের অতি পরিচিত ও প্রিয়জন, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন গামা।
আসন্ন চাঁদগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন গামা কে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দেখতে চাই, দলের তৃনমুলের নেতাকর্মী ও ইউনিয়নের সচেতন জনসাধারণ। আসন্ন চাঁদগ্রাম ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দল থেকে মনোনয়ন পাবেন এমনটাই বিশ্বাস করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা।
আনোয়ার হোসেন গামা'র জন্ম কিশোর বয়সে বাংলাদেশ ছাত্র লীগ'র রাজনীতি দিয়ে। তিনি দল থেকে এক সেকেন্ডের জন্য নিজে দুরে সরে যাননি বা দলকে তার জন্য কখনো বিতর্কিত হতে হয়নি। এই সময়ে উপজেলার এক ঝাঁক পরিক্ষিত যুবনেতা পেয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আগামীতে আরো দুর্বার, দুর্জয়  হয়ে উঠবে এ কথা বলার অপেক্ষা রাখেনা।
তবে এদের কে যথাসময়ে মুল্যায়ন করতে হবে বয়সের দোহায় দিয়ে অবহেলা করা হলে তা হবে আগামীর জন্য চরম আত্মঘাতী, মন্তব্য সচেতন জনগোষ্ঠীর। উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি আনোয়ার  হোসেন গামা  সকলের কাছে দোয়া ও সমর্থন কামনা করেছেন।

Post a Comment

0 Comments