দুই পদের দায়িত্বে সফল ধুবইল ইউপি সদস্য খন্দকার রেজাউল মেম্বার

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ মিরপুর উপজেলার ধুবইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ইউপি সদস্য খন্দকার মোঃ রেজাউল ইসলাম দলের কান্ডারী হিসাবে তার ০২নং ওয়ার্ডে দলকে পরিচালনার দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করে চলেছে। অপরদিকে ০২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হয়ে ওয়ার্ডবাসীর প্রিয় ব্যক্তিত্বে এবং তাদের কাছের ভালোবাসার মানুষ ও প্রিয় ব্যক্তি হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে। তার কিছু জুগান্তরকারী সিদ্ধান্ত এবং সৎ ও ন্যায় নিষ্ঠাতার প্রমাণ দেওয়ার কারনে ওয়ার্ডবাসীর আপনজন হয়ে উঠেছেন। এছাড়াও তিনি শিক্ষানুরাগী হওয়ার কারনে বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালনে যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছেন। করোনাকালে মানুষের দুঃসময়ে খুব কাছাকাছি থেকে মানুষের সেবা করার মধ্যেই তিনি গত ২৩ মে’ করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়েন। পরবর্তীতে ২৫দিন হোম কোরাইন্টিনে থেকে করোনার সাথে যুদ্ধ করে জয়ী হয়ে আবারও মানুষের সেবায় মাঠে নেমে পড়েন।
খন্দকার মোঃ রেজাউল ইসলাম ২০১৭সালে ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ০২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হিসাবে বিপুল ভোটে জয় লাভ করেন। মানুষ তাকে ভালোবেসে কাছে টেনে নেয়। ইউপি সদস্য রেজাউল মানুষের মন জয় করতে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন শুরু করে। তিনি কৃষকদের তৃষ্ণা মেটানোর জন্য মাঠের মধ্যে টিউবওয়েল স্থাপন করে দেন। দুঃস্থ ও বিধবা পরিবারের মাঝে সেলাই মেশিন প্রদান করেন। ৯টি বয়স্ক ভাতার কার্ড সুষ্ঠ ভাবে বিতরণ করেন। তিনি দুঃস্থ্য, বয়স্ক ও বিধবা এবং প্রতিবন্ধীদের চাহিদার তুলনায় স্বল্পতা হওয়ায় তালিকা করে তার মধ্যে থেকে অতি দুঃস্থ্যদের বাছাই করে তাদের মধ্যে বয়স্ক ভাতার কার্ড বিতরণ করেছেন। তালিকায় যে সব ব্যক্তিদের কার্ড দেওয়া সম্ভব হয়নি সেগুলো পর্যায়ক্রমে আগামীতে কার্ড বিতরণ করা হবে এমন যুগান্তরকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য হিসাবে দায়িত্ব গ্রহন করার পর আনুমানিক ৩০টির বেশি বিভিন্ন সমস্যার অভিযোগ গ্রাম শালিশের মাধ্যমে সমাধান করেছেন। অত্র এলাকায় বাল্য বিবাহ বন্ধে কঠোর ভূমিকা রেখেছেন। ইতিমধ্যে গোপনে একটি বাল্য বিবাহ অনুষ্ঠানে গিয়ে বিবাহ বন্ধ করে দেন এবং অভিযুক্ত বিয়ে পড়ানো মওলানাকে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার ব্যবস্থা করেন।
করোনাকালীন সময়ে সারা পৃথিবীর মানুষের মতো বাংলাদেশের মানুষও এই মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসের থাবায় দিশেহারা। কি করবে নি¤œ শ্রেনীর মানুষেরা। এমন অবস্থায় জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষন বেঁেচ থাকা অসহায় ও হতাশাগ্রস্থ মানুষগুলো। তবে এই হতাশাগ্রস্থ মানুষের পাশে প্রথম থেকেই সম্মুখ যোদ্ধা হিসাবে ভাইরাস আতংককে উপেক্ষা করে সর্বক্ষন মানুষের মাঝে ছিলেন ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য খন্দকার মোঃ মিজানুর রহমান। তিনি করোনাকালীন সময়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ২৭হাজার টাকা বিতরণ করেন। সরকারী ভাবে ২০০জন পরিবারকে সেই সময় সুষ্ঠ ভাবে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক বরাদ্দকৃত ত্রাণ সামগ্রী ১০০টি অসহায় পরিবারের মাঝে সুষ্ঠ ভাবে বন্টন করেন।
জনপ্রিয় ও জনদরদী ইউপি সদস্য খন্দকার মোঃ রেজাউল ইসলাম বলেন, যেসব সাধারন মানুষ ও মধ্যবিত্ত পরিবার, যারা কারও কাছে হাত পেতে প্রকাশ্যে ত্রাণ গ্রহন করতে পারছেন না, তাদের জন্য আমি করোনাকালীন সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সহযোগীতার জন্য একটি পোষ্ট করি এবং পোষ্টে আমার মোবাইল নম্বরও উল্লেখ করি। যে কেউ আমাকে জানালেই আমি তার কাছে পৌছে গিয়ে আমার সাধ্যমত সহযোগীতা করার চেষ্টা করব। পরবর্তীতে অনেকের কাছে গোপনে তার বসতবাড়িতে গিয়ে সাহায্য সহযোগীতা পৌছে দিয়ে এসেছি। এভাবেই সাধারন মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি এবং আগামীতে তাদের পাশে থেকে সেবা ও খেদমত করে যেতে চায়। সেই সাথে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ ও সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হিসাবে দলের উন্নয়ন মূলক কাজের অংশীদার হতে চায় এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সোনার বাংলা গঠনে তূণমুলে ভূমিকা রাখতে চায়। আগামীতে নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের আস্থা অর্জন করে আমার অসমাপ্ত কাজ গুলো সম্পন্ন করব। সেই সাথে সেবার মানও বৃদ্ধির চেষ্টা করব।
ধুবইল ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডবাসীর জনপ্রিয় জননেতা ও ইউপি সদস্য খন্দকার রেজাউল ইসলাম ২০১২সালে ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে মনোনীত হন। বর্তমানে তিনি ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়র সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ধুবইল এন.কে.বি নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি, কমিউনিটি ক্লিনিকের কোষাধক্ষ্য, লক্ষীধরদিয়াড় বায়তুনফালা জামে মসজিদ এর সাধারন সম্পাদক ও রবেলা মোড় বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক এবং লক্ষীধরদিয়াড় সেচ প্রকল্প এর সহ-সাধারন সম্পাদক হিসাবে সুশৃঙ্খল ও সততার সাথে তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও পদাধিকার বলে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সদস্য ও ইউনিয়ন পরিষদের কমিটির ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সভাপতির মত গুরুত্বপূর্ণ পদ তার যোগ্যতা বলে অর্জন করেছেন।
স্থানীয় নেতাকর্মী ও আওয়ামীলীগের সমর্থনদানকারী ও সাধারন জনতা রেজাউল মেম্বারের যোগ্যতা, সততা ও তার কাজ কর্মে মুগ্ধ হয়ে আগামীতে তাকে আরও বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে তাদের মাঝে রেখে দিতে চায় বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

Post a Comment

0 Comments