শোক আর শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ জাতীয় শোক দিবসে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টের অন্যান্য শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী
শোক আর শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ
জাতীয় শোক দিবসে শনিবার ভোরে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর মোনাজাতে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল -ফোকাস বাংলা
স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে শ্রদ্ধা জানাতে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের ঢল নামে। করোনাভাইরাসের ঝুঁকি ও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি উপেক্ষা করে শনিবার সকাল থেকেই শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসেন দলীয় নেতাকর্মী ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা।
ভোরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোর মাধ্যমে শোক দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা জানাতে আসা দলীয় নেতাকর্মীসহ অনেককেই শোকের প্রতীক কালো পোশাক পরতে, হাতে কালো পতাকা এবং বুকে কালো ব্যাজ ধারণ করতে দেখা গেছে।
ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর এ মহান নেতার প্রতি সম্মান জানিয়ে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন তিনি। এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল তাকে রাষ্ট্রীয় সালাম জানায়। বিউগলে বেজে ওঠে করুণ সুর। পরে ১৫ আগস্টের শহিদদের রুহের মাগফিরাত ও শান্তি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু ভবনের ভেতরে গিয়ে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল।
প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য খুলে দেওয়া হয়। পরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন করে আওয়ামী লীগ। সঙ্গে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ১৪ দলের নেতারা।
এরপর একে একে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেক লীগ, আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, তাঁতী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন, শেরে-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় প্রেসক্লাব, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা শহীদ পরিবার, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি, আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ, আইনজীবী সমিতি, জয়বাংলা সাংস্কৃতিক ফেডারেশন, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পরিষদ, বাংলাদেশ বেতার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, শেখ রাসেল শিশু সংসদ, বাংলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, শিশু একাডেমি, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও বিভিন্ন সংগঠন এবং সাধারণ মানুষকে মহান নেতাকে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে এ সময় 'জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু', পলাতক খুনিদের ফাঁসি চাই,'সহ বঙ্গবন্ধুর নামে বিভিন্ন স্স্নোগান দিতে দেখা যায়।
১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সাজাপ্রাপ্ত পলাতক খুনিদের দ্রম্নত ফিরিয়ে এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক- এমনটাই চাওয়া জাতীয় শোক দিবসে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষদের।
১৫ আগস্ট নিহতদের স্মরণে বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা :
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শনিবার সকালে বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টের অন্যান্য নিহতের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী তার মা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, ভাই শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শেখ রাসেলসহ ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্টের অন্য নিহতদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় ১৫ আগস্টের নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করেন শেখ হাসিনা।
টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন :
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী? ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গোপালগ?ঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর প?ক্ষে শ্রদ্ধা নি?বেদন করা হয়েছে। শ?নিবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সামরিক সচিব মেজর জেনারেল ন?কিব আহমদ চৌধুরী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
এ সময় তিন বাহিনীর পক্ষে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। পরে দোয়া ও বি?শেষ মোনাজাত করে বঙ্গবন্ধু ও ৭৫-এর ১৫ আগস্ট শহিদ?দের আত্মার মাগ?ফিরাত কামনা করা হয়।
প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পক্ষে কেন্দ্রীয় নেতারা বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ক?রে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় প্রে?সি?ডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর ক?বির নানক, ফারুক খান এম?পি, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন না?ছিম, সংগঠ?নিক সম্পাদক এস এম কামাল হো?সেন, মির্জা আজম, আফজাল হোসেন, সদস্য সাহাবু?দ্দিন ফরাজী, আনিসুর রহমান, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লী?গের সভাপ?তি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খানসহ জেলা আওয়ামী লীগ ও সহ?যো?গী সংগঠ?নের নেতৃবৃন্দ উপ?স্থিত ছি?লেন।
এরপর জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, গণপূর্ত বিভাগ, জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের বেদীতে শ্রদ্ধা জানানো হয়। প?রে সমাধিসৌধ কমপেস্নক্স মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মিলাদ ও দোয়া মাহ?ফি?লে কেন্দ্রীয় নেতারা উপ?স্থিত ছি?লেন। এরপর বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে শ্রদ্ধা জানাতে বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপেস্নক্স উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।
এদিকে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের পাশাপশি বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে অসহায়, দুস্থসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে তবারক পৌঁছে দেন নেতাকর্মীরা। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল রঞ্জণ গুহ ও মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আজগর নষ্করসহ নেতাদের উদ্যোগে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে তবারক বিতরণ করা হয়। উত্তরায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৬টি ওয়ার্ডে তবারক বিতরণ করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবীব হাসান।
অপরদিকে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে পল্টন থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। পল্টন কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন থানা সভাপতি ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এনামূল হক আবুল। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির, পল্টন থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সালাম খান সেলিম প্রমুখ।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ে 'বিষাদের শব্দমালায়' পিতা স্মরণ' শীর্ষক বিশেষ ভার্চুয়াল আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। শনিবার দুপুরে গুগল-মিটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানটি উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক পেজে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।
বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সায়েদা বানুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনা রাখেন উপাচার্য ড. এম আজিজুর রাহমান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. ইয়াসমীন আরা লেখা, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ বেগম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার কাজী মহিউদ্দীন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলা বিভাগের সিনিয়র লেকচারার সামজীর আহমেদ।

Post a Comment

0 Comments