ভেড়ামারার পৌর মেয়র আলহাজ্ব শামীমুল ইসলাম ছানার ভূমিকা একটি উজ্জল মানবিক দৃষ্টান্ত

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ মেয়র আলহাজ্ব শামীমুল ইসলাম ছানা ধর্ষিত শিশু ও তার বাবার পাশে থাকায়, বাবা ও ৯নং ওয়ার্ডবাসীরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। ভেড়ামারার জনপ্রিয় পৌর মেয়র আলহাজ্ব শামীমুল ইসলাম ছানা ধর্ষিত শিশু ও তার বাবার পাশে দাড়িয়ে বিশেষ ভুমিকা পালন করায়, ধর্যিতার বাবা ও ৯নং ওয়ার্ডবাসী বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। ভেড়ামারাসীও এঘটনায় বিশেষ ভুমিকার জন্য সন্তোস প্রকাশ করেছন। গতকাল রোববার জনদরদী জননেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রিয় পৌর মেয়র আলহাজ্ব শামীমুল ইসলাম ছানা ঈদ শুভেচ্ছার দাওয়াত খেতে যায় এক সাংবাদিকের বাসায়, এমন সময় শিশু ধর্ষনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা জানতে পারেন। জানতে পারার সাথে সাথে থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়ে ধর্ষককে আটক করিয়ে থানায় নিয়ে আসান। এসময় তিনি খাবার টেবিলের খাবার না খেয়ে ধর্ষিত শিশুর বাবাকে নিয়ে থানায় চলে যান। তাছাড়া ধর্ষিত শিশুর চিকিৎসার ব্যাবস্থা করেন। এবং মামলা দায়েরের সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পুর্ন করে তারপর থানা থেক বের হয়ে যান। ভেড়ামারার জনতার বন্ধুখ্যাত সংগ্রামী জননেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রিয় পৌর মেয়র আলহাজ্ব শামীমুল ইসলাম ছানা বলেন, ধর্ষকের কোন ছাড় নয়, তাদেরকে কঠিন শাস্তি দিতে হবে। যেন আর এমন ষটনা ঘটানোর কেউ সাহস না পায়। ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা জানান, মেয়র সাহেবের ভুমিকার কারনে ধর্ষকের শাস্তি হয়েছে, মামলা হয়েছে। আমরা মেয়র সাহেবকে ধন্যবাদ ও বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। বিচারে ধর্ষক শান্ত মালিথার কঠোর শাস্তির দাবি করছি। উল্ল্যেখঃ পৌরসভার বামন পাড়ার ৯নং ওয়ার্ডে ৫ বছরের শিশুকে ওই এলাকার মজনু মালিথার ছেলে শান্ত মালিথা (১৪) প্রলোভন দেখিয়ে সন্ধায় নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে।

Post a Comment

0 Comments