ভেড়ামারায় করোনা আক্রান্তদের বাড়ীতে ফ্রি অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিচ্ছে মাহমুদা ক্লিনিকের স্বাস্থ্যকর্মিরা

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ করোনা ভাইরাসের কারনে ভেড়ামারায় যখন স্বাভাবিক চিকিৎসা সেবা কাযক্রম ব্যাহত হচ্ছে, যখন মূমুর্ষ রোগীর বাড়ীতে চিকিৎসকরা যাচ্ছেন না, তখন করোনা আক্রান্ত ও করোনা উপসর্গসহ জটিল রোগীর শ্বাসকষ্ট লাঘবে অনেকটা ঝুঁকি নিয়েই বিনামূল্যে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিচ্ছেন মাহমুদা ক্লিনিকের স্বাস্থ্যকর্মিরা।
প্রতিকুল পরিস্থিতিতে হাতের নাগালে জীবনরক্ষাকারী অক্সিজেন সুবিধা পাওয়ায় প্রচন্ড শ্বাসকষ্টে থাকা রোগীরাও প্রাণে বেঁচে যাচ্ছেন।
গত ১৮ জুন বিনামূল্যে অক্সিজেন সাপোর্ট কাযক্রম চালু করার পর দিন-রাত সেবা দিয়ে যাচ্ছে মাহমুদা ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। করোনা আক্রান্তদের জন্য দুইটি হটনম্বরও চালু করেছে তারা।
মাহমুদা ক্লিনিকের উদ্যোগে মূমুর্ষ রোগীর বাড়ীতে বিনামূল্যে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেয়ার মানবিক সেবা কাযক্রমটি ভেড়ামারার সর্বমহলে প্রশংসিত হচ্ছে।
ভেড়ামারা পৌরসভার কর্মচারী রুহুল আমিন কয়েকদিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে পূর্ব বামনপাড়া গ্রামে তার নিজ বাড়ীতে আইসোলেশনে আছেন। রুহুল আমিনের ছেলে পরাগ জানান, গত রবিবার রাতে তার পিতার প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট শুরু হলে মাহমুদা ক্লিনিকে ফোন করে অক্সিজেন সাপোর্ট চেয়েছিলাম। কিছুক্ষনের মধ্যে ক্লিনিকের পরিচালক শাহেদ আহমেদ গামাসহ স্বাস্থ্য কর্মিরা আমাদের বাড়ীতে এসে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেন এবং সিলিন্ডার ব্যবহারের নিয়মগুলো শিখিয়ে দেন।
ভেড়ামারা শহরের ব্যবসায়ী আফজাল কবীর খান জানান, আমার স্ত্রী দূরারোগ্য ক্যান্সারের রোগী। দুই দিন আগে হঠাৎ আমার স্ত্রীর শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। মাহমুদা ক্লিনিকের স্বাস্থ্যকর্মিদের অক্সিজেন সহায়তা ও চিকিৎসায় আমার স্ত্রী সুস্থ হয়।
বিনামূল্যে অক্সিজেন সাপোর্ট দেয়া প্রসঙ্গে মাহমুদা ক্লিনিকের পরিচালক শাহেদ আহমেদ গামা বলেন, করোনা আক্রান্ত অধিকাংশ রোগীর শ্বাসকষ্টের প্রবনতা দেখা দেওয়ায় আমরা তাদের জন্য জরুরী অক্সিজেনের ব্যবস্থা করেছি। আমরা চায়, অক্সিজেনের অভাবে কেউ যেন মারা না যান





Post a Comment

0 Comments