ভালা নেই কুমারখালী তাঁত শিল্পের শ্রমিকরা' অর্থ সংকটে মালিক পক্ষ


মোশারফ হোসেন কুমারখালী \\ কুষ্টিয়া কুমারখালী ঐতিহ্য তাঁত শিল্পের সাথে জড়িত মালিক শ্রমিকরা চরম অর্থ সংকটে মধ্যে রয়েছেন। অর্থনৈতিক সঙ্কট, কাঁচামালের অভাব নানান প্রতিকূলতার কারণে জেলার এককালের প্রসিদ্ধ এই তাঁত শিল্প বিলুপ্তের  পথে।
ফলে শিল্পের সাথে জড়িত কয়েক লক্ষ শ্রমিক কয়েক হাজার মালিক এখন বেকার হয়ে অর্থ সংকটে পড়েছে। এই শিল্প ক্রমাগত লোকসান, প্রয়োজনীয় পুঁজি, সুষ্ঠুনীতিমালার অভাব এমনি তে চরম দুর্ভোগে ছিল এতো দিন।  মহামারী করোনা  কারণে চরম দুর্দিনে রয়েছেন তাঁত শ্রমিকরা, তাদের সংসার চলে খেয়ে না খেয়ে। সব তাঁত এখন বন্ধ প্রায়। তাঁত শিল্পের কাপুড়ের চাহিদা একেবারেই কমে গেছে। ফলে একরকম দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন পেশার সাথে জড়িত শ্রমিকরা।   সকাল থেকে সন্ধ্যা অবদি টাকুর-টুকুর শব্দে মুখর হয়ে থাকত যে তাঁত পল্লীগুলো। এখন আর সেখানে তাঁতের কর্মমুখরতা নেই। বর্তমানে সেখানে এখন নিঃশব্দে মুখ থুবড়ে পড়ে আছে তাঁত গুলো। মহা সংকটে ঠিকমতো সংসার চলে না শ্রমিক দের।পেটের দায়ে পূর্বপুরুষের এই পেশা ছেড়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। সূত্র জানায়, তাঁত শিল্প নগরী খ্যাত কুষ্টিয়ার কুমারখালী, খোকসা পাংশা, উপজেলায় প্রায় লক্ষাধিক অধিক তাঁতী ছিল। এরমধ্যে হস্তচালিত তাঁত ৪৪ হাজার বিদ্যুৎ চালিত তাঁত ৬০ হাজার প্রায়। প্রতি বছর ২শ৬০ কোটি টাকা মূল্যের কাপড় তৈরি হত জেলায়। কোটি ৮৮ লাখ পিস লুঙ্গি, ১৫ লাখ পিস বেডকভার, ৭২ লাখ পিস গামছা তোয়ালে উৎপাদন হত। এক সময় জেলায় বস্ত্রশিল্পের বার্ষিক আয় ছিল ৩শকোটি টাকার উপরে। দেশের মোটা কাপড়ের চাহিদার ৬৩ ভাগ পূরণ করতো কুষ্টিয়ার তাঁতীরা। ১৯৯০ সাল পর্যন্ত তাঁত কাপড়ের ছিল ব্যাপক চাহিদা। বর্তমানে চাহিদা কমে ২৫ ভাগে নেমে এসেছে। সব কিছুর দাম বাড়লেও আশানুরুপ তাঁতবস্ত্রের কোন দাম না বাড়ায় কুষ্টিয়ার লাখ ১৪ হাজার শ্রমিকের মধ্যে ৫০ হাজার তাঁত শ্রমিক পেশা ছেড়ে দিয়েছেন। এখনও পুরাতন পেশা হিসেবে পেশায় টিকে আছে কয়েক হাজার তাঁতী। কয়েকজন তাঁতী জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ পেশার সাথে জড়িত আছেন তারা। তাই অনেকেই তাঁত শিল্পে এখনো টিকে আছে। কাজ করেই সংসার চলে কুমারখালীর তাঁতীদের এই তাঁত শিল্প কে বাঁচাতে হলে অবশ্যই কারিগরদের দিকে তাকাতে হবে সরকার কে মহামারী করোনা কারণে যেন এই শতবর্ষের ঐতিহ্য হারিয়ে না যায় সেই বিষয়ে এখনি শ্রমিক মালিকদের প্রয়োজনীয় অর্থ তাঁত শিল্পের কাঁচামালের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এমনটি মনে করেন তাঁত শিল্পের সাথে জড়িত ব্যক্তিরা

Post a Comment

0 Comments