কুষ্টিয়ায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে প্রাইভেট গাড়ি

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক  \\ করোনা ভাইরাসে পুরো বিশ্ব আক্রান্ত। আমাদের দেশে এর প্রভাব অনেক আগে থেকেই পড়তে শুরু করেছে। সরকারের সদিচ্ছাই পুরো দেশ লকডাউনসহ নানা কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। সব নাগরিকদের ঘরে অবস্থানের জন্য চুড়ান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।
সরকারের আদেশের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে সিংহভাগ মানুষ এখন স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে যা ইতিবাচক। কিন্তু এরপরেও কিছু মানুষ প্রয়োজন ছাড়াই ঘরের বাইরে এসে হাটে বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে। এই যত সামান্য মানুষের জন্য আজ হুমকির মুখে পুরো দেশ। স্থানীয়ভাবে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপকভাবে প্রচার-প্রচারণা ও অভিযান চালিয়েও ব্যর্থ হচ্ছে।
হাট বাজারের জন্য নতুন করে সময়সীমা বেঁধে দেয়ার পরেও তা কেউ মানছে না। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে প্রতিদিন দুপুরের পর থেকে জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে অভিযান চালিয়েও মানুষকে নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। প্রয়োজন ছাড়াই প্রাইভেট গাড়ি ও মোটর সাইকেলের দাপট পুরো শহর এবং শহরতলী এলাকা। শহরের রাস্তাগুলোতে ইট ও বালুর গাড়ি নিয়মিত চলছে।
বিশেষ করে শহর থেকে বের হওয়ার রাস্তাগুলোতে এসব অবৈধ যানবাহন দেখা যাচ্ছে। এসব যানবাহন পরিবেশ এবং শব্দদূষণ করেই চলেছে প্রতিনিয়ত। শহরের থানাপাড়া নদী এলাকা থেকে বালুভর্তি অবৈধ যানবাহন চলছে নিয়মিত। কিন্তু এদের প্রতিকারে কেউ এগিয়ে আসছে না। প্রশাসনের এতো নজরদারির পরেও মোটর সাইকেল ও প্রাইভেট গাড়ি কোনো কারণ ছাড়াই চলাচল করছে।
রবিবার শহরের অনেক স্থানে পুলিশের তৎপরতায় দেখা গেছে এসব গাড়ি চলাচলে বাধা সৃষ্টি করা হয়। কিন্তু পুলিশের নাগালের বাইরে গেলে আবার একই অবস্থা দেখা যায়। জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সেনাবাহিনী শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জনগণকে ঘরের মধ্যে নিয়ে যেতে চাচ্ছে এবং করোনার ভয়াবহতা থেকে পুরো জেলাবাসীকে রক্ষা করতে কাজ করে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে জনগণ আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হলে প্রশাসন কঠোর অবস্থানে যেতে বাধ্য হবে বলে অনেকে মনে করছেন। আর বর্তমান অবস্থায় প্রশাসনকে নমনীয় মনোভাব পোষণ থেকে ফিরে এসে কঠোর অবস্থানে যাওয়ার পক্ষে সাধারণ মানুষ।

Post a Comment

0 Comments