কুমরিখালিতে মেম্বারের ত্রাণের চাল চুরি \ জনতার তোপে ফেরত

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক \ জনতার তোপের মুখে পড়ে অবশেষে চুরি করা ত্রাণের সরকারি চাল ফেরত দিলেন এক ইউপি মেম্বার। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ ও জনতার তোপের মুখে কুষ্টিয়ার ইউপি মেম্বার শরিফুল চাল ফেরত দেন।
দুঃস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত চালসহ নিত্যপন্য সামগ্রী বিতরণ না করে ইউপি মেম্বার ১১ বস্তা ভর্তি চালসহ অন্যান্য পণ্য আত্মসাৎ করেন। পরে সেগুলো ঘনিষ্ঠজনদের সহায়তায় নিজ বাড়িতে লুকিয়ে রাখেন। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা ত্রাণের ওই চাল উদ্ধার করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের গরীব-দুঃস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত ত্রাণের চাল বিতরণের সময় ইউপি মেম্বার শরিফুল ইসলাম চালসহ খাদ্যসামগ্রী সরিয়ে রাখেন। এসময় চাল বিরতণকালে অপেক্ষমাণ তালিকাভুক্ত ওই এলাকার গরীব-দুঃস্থরা ত্রাণ না পেয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন।
এছাড়া অভুক্ত মানুষরা ত্রাণের দাবীতে মেম্বর শরিফুলকে ঘোরও করে রাখেন। এসময় ইউপি মেম্বার শরিফুল ভুক্তভোগীদের জানান যে, এবার অল্প বরাদ্দ এসেছে। আগামীতে বরাদ্দ আসলে তখন আপনাদের ত্রাণ দেওয়া হবে। পরবর্তীতে বিষয়টি জানাজানি হলে কর্তৃপক্ষ নড়ে-চড়ে বসে এবং প্রশাসনের চাপ ও জনতার তোপের মুখে ইউপি মেম্বার আত্মসাৎ করা ১২ বস্তা চাল ফেরত দিতে বাধ্য হন।
এদিকে শরিফুল মেম্বারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী ফুঁসে উঠেছে। দুর্নীতিবাজ এ মেম্বারের বিরুদ্ধে আইনগত কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তুলেছেন ভুক্তভোগীরা।
ত্রাণ বিতরণ সংশ্লিষ্ট কুমারখালী সমাজসেবা অফিসার মোহাম্মদ আলী জানান, ইউপি মেম্বার শরিফুলের নিজ বাড়ি থেকে ত্রাণের চাল উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খান জানান, ট্যাগ অফিসার সমাজসেবা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলীকে ঘটনা সম্পর্কে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। রিপোর্ট দাখিলের পর এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

Post a Comment

0 Comments