ভেড়ামারায় বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কলেজ ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষন ॥ ধর্ষক রনি আহম্মেদ গ্রেফতার

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥  কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা ডিগ্রী কলেজের ডিগ্রীর ২য় বর্ষের ছাত্রীকে (২১) জোরপূর্বক ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ভেড়ামারা শহরের নওদাপাড়া এলাকার মজনু হোসেন ছেলে রনি আহম্মেদ (২৮) ও তার দুলাভাই ১৬ দাগ ৬৮ পাড়া এলাকার মৃত সোভান মোল্লার ছেলে হায়দার মোল্লাসহ অজ্ঞাত ২-৩ জনের নামে নারী নির্যাতন মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা নং-১৬ তারিখ- ২৩-০৯-১৭ ইং । ধর্ষন করার অভিযোগে ভেড়ামারা শহরের নওদাপাড়া এলাকার মজনু হোসেন ছেলে রনি আহম্মেদ (২৮) কে শনিবার রাতে তার নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।
ভেড়ামারা থানার মামলা ও অভিযোগকারীদের সুত্রে জানা গেছে, ভেড়ামারা ডিগ্রী কলেজের ডিগ্রীর ২য় বর্ষের ছাত্রী ও বাহিরচর ইউনিয়নের ১২ দাগ এলাকার সিরাজুল ইসলামের কন্যা (২১) কলেজে যাওয়া আসার প্রাক্কালে শহরের নওদাপাড়া এলাকার মজনু হোসেন ছেলে রনি আহম্মেদ (২৮) সাথে পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে ২ জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। রনি বিবাহ করার শপথ করলে তাদের মধ্যে দৈহিক সর্ম্পক গড়ে উঠে রনি আহম্মেদ কে বিবাহের চাপ দিলে সে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে ঘুরাইতে থাকে। এ ব্যাপারে পিতা মাতা ও রনি আহম্মেদ এর পরিবারের লোকজনের সাথে আলোচনা করলে বিবাহের বিষয়ে চুড়ান্ত হয়। এই সুযোগে রনি আহম্মেদ দীর্ঘদিন ধরে দৈহিক সর্ম্পক করে। গত ০৬-০৯-১৭ ইং তারিখে রনি আহম্মেদ এর বসত বাড়িতে বিবাহের কথা বললে সে রাজী হয়। ঐ দিন রাত ১১ টার সময় রনি আহম্মেদ আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। রনি আহম্মেদ  ও তার দুলাভাই হায়দার মোল্লাসহ অজ্ঞাতনামা আসামীর সহযোগিতায় মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। রনি আহম্মেদ  ও বাকীঁঁ আাসামীরা অকথ্য ভাষায়  গালি গালাজ সহ প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। 
ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনূল ইসলামের নির্দেশে ওসি (তদন্ত) আননূর যায়েদ ও এস আই আবু বক্কারসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শনিবার রাতে শহরের নওদাপাড়া এলাকার মজনু হোসেন ছেলে ধর্ষক রনি আহম্মেদ কে গ্রেফতার করে। রোববার দুপুর ১২টার সময় ভেড়ামারা থানা ধর্ষক রনি আহম্মেদ কে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।
ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনূল ইসলাম জানান, ভেড়ামারা ডিগ্রী কলেজের ডিগ্রী’র ২য় বর্ষের ছাত্রীকে (২১) জোরপূর্বক ধর্ষন করার অভিযোগে ধর্ষক রনি আহম্মেদ কে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীঁ আসামীদের কে গ্রেফতারের জন্য অভিযোন অব্যাহত রয়েছে।

Post a Comment

0 Comments