ভেড়ামারায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় ২ সাংবাদিক মৃত্যুশয্যায় ॥ মুর্মুষ অবস্থায় রাজশাহী মেডিক্যালে প্রেরন

চেতনায় কুষ্টিয়া প্রতিবেদক ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় কুষ্টিয়ার বহুল প্রচারিত দৈনিক আজকের আলো পত্রিকার কুমারখালী প্রতিনিধি, বিশিষ্ট সাংবাদিক এম এ ওহাব ও দৈনিক সত্য খবর পত্রিকার সাংবাদিক নাসির উদ্দীন গুরুত্বর আহত হয়ে এখন রাজশাহী মেডিক্যালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।
এর আগে মুর্মুষ অবস্থায় তাদের কে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে বিজ্ঞ চিকিৎসকরা তাদের দ্রুত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের কে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এর মধ্যে নাসির উদ্দীন’র বাম পায়ে আপারেশন করে হাটুর নীচ থেকে কেটে বাদ দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বর্তমানে তাদের অবস্থা আশংকাজনক। এ দিকে দু’সাংবাদিক সড়ক দূর্ঘটনায় গুরুত্বর আহত হওয়ার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে তাদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নিতে কুষ্টিয়া থেকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ছুটে আসেন, দৈনিক আজকের আলো পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ও চ্যানেল নাইন’র কুষ্টিয়া প্রতিনিধি দেবাশিষ দত্ত, কুষ্টিয়া প্রেসক্লবের সদস্য, বিশিষ্ট সাংবাদিক এম লিটন উজ জামান, ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক চেতনায় কুষ্টিয়া পত্রিকার সম্পাদক প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল,  দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকার ভেড়ামারা প্রতিনিধি মাসুদ করিম, দৈনিক মানবজমিন ও আজকের আলো পত্রিকার ভেড়ামারা প্রতিনিধি  শাহ্ জামাল সহ একাধিক সাংবাদিকরা। এসময় তাদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন এবং তাদের পাশে থেকে সব রকমের সহযোগিতা করার ঘোষনা দেন।
জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার বিকেলে মোটরসাইকেল যোগে কুষ্টিয়ার কুমারখালী থেকে সাংবাদিক এম এ ওহাব এবং নাসির উদ্দীন ব্যবসায়িক কাজে ঈশ্বরদী আসছিলেন। পথে মধ্যে তারা ভেড়ামারার ১২ মাইল মোড় পার হয়ে মিলের সন্নিকটে পৌছালে অপর দিক থেকে আসা একটি ১০ চাকার দ্রুতগামী ঘাতক ট্রাক তাদের চাপা দেয়। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, এসময় দু’সাংবাদিককে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায় ঘাতক ট্রাক। এতে সাংবাদিকদের পা ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এসময় ঘাতক ট্রাক কে স্থানীয়রা আটক করে দু সাংবাদিককে মুর্মুষ অবস্থায় উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আসাদুজ্জামান গুরুত্বের সাথে তাদের চিকিৎসা করান। সাংবাদিকদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের কে দুটি এম্রবুলেন্সে করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। এর আগে সাংবাদিক নাসির উদ্দীনের বাম পায়ে অপারেশন করে হাটুর নীচের অংশ কেটে বাদ দেওয়া হয়। সাংবাদিক নাসির উদ্দীনের বড় ভাই শরীফূল ইসলাম জানিয়েছেন, দু জনের অবস্থায় এখনও আশংকাজনক।

Post a Comment

0 Comments