Header Ads

ভেড়ামারায় সকল প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সাথে মতবিনিময় সভায় ডিসি জহির রায়হান



আব্দুল আলিম ভেড়ামারা ॥ ২০০৯ সালের আগে বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নের কোন দুরদর্শী পরিকল্পনা বা রূপকল্প ছিলনা। ২০০৯ সালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপকল্পÑ২০২১ ঘোষনা করেন এবং সেই লক্ষ্যে বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশে পরিণত করে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
রাষ্ট্র  যন্ত্রের লক্ষ্য বাস্তবায়নে ক্ষুধাÑদারিদ্রমুক্তÑডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মিানের উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে প্রশাসনের সাথে সমন্বয় রেখে জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিক ও সুধি সমাজকে একযোগে কাজ করতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় ভেড়ামারা উপজেলা অডিটোরিয়ামে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত নবাগত জেলা প্রশাসক জহির রায়হানের সাথে জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক,সাংবাদিক ও সুধি সমাজের সাথে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক জহির রায়হান উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমার সভাপতিত্বে আয়োজিত উক্ত সভার প্রধান অতিথি হিসেবে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক জহির রায়হান আরো বলেন, রূপকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকার দুটি পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছেন। দেশের বাজেট ও জিডিপির পরিসর ইতোমধ্যে বৈদেশিক সাহায্য নির্ভরতা কমিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। ভিশন‘২১ বাস্তবায়নে শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি, মাদক ও সন্ত্রাস নির্মুল, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ করাসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধকতা দূর করন জরুরী হয়ে দেখা দিয়েছে। জহির রায়হান আরো বলেন, সাংস্কৃতিক দিয়ে অগ্রগামী কুষ্টিয়া জেলা ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে রোল মডেল হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। উদ্ভাবনী কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে জেলা ও উপজেলার কার্যালয়সমূহ ফেসবুক ও ওয়েব পেজের মাধ্যমে তড়িৎ তথ্য আদানÑপ্রদানের ক্ষেত্রে গণমূখী ও দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণে তৎপরতা প্রদর্শন করে চলেছে। কুষ্টিয়ার ডিসি আরো বলেন, ধর্মান্ধতার কারনে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটলেও কুষ্টিয়াবাসীর অন্তরে লালিত স্বতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষ মনোভাবের কারনে এখানে জঙ্গি সন্ত্রাসীদের উত্থান নেই বললেই চলে। তবে আত্মতৃপ্তির কোন সুযোগ নেই। সকল আশংকাকে গুরুত্ব দিয়ে মোকাবেলা করার জন্য জেলার পুলিশ বাহিনীসহ অন্যান্য আইন শৃংখলা বাহিনীকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। সভায় কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক জহির রায়হান তার বক্তব্যে পূনর্বাসন প্রক্রিয়া গ্রহনের মাধ্যমে এবছরের মধ্যেই কুষ্টিয়াকে ভিক্ষুক মুক্ত করা হবে মর্মে ঘোষনা দেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডঃ তৌহিদুল ইসলাম আলম, ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শামিমূল ইসলাম ছানা, কেন্দ্রীয় জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলিম স্বপন, ভেড়ামারা সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার কামরুল হাসান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) ইন্দোনেশিয়া সিটু, ভেড়ামারা কলেজের অধ্যক্ষ শামছুর বারী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) শিহাব রায়হান, ভেড়ামারা থানার ওসি নূর হোসেন খন্দকার, চাঁদগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবজোটের সভাপতি আব্দুল হাফিজ তপন, ভেড়ামারা মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল জববার. ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক চেতনায় কুষ্টিয়ার প্রকাশক ও সম্পাদক প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল, সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক হিসনা বাণী পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আরিফুজ্জামান লিপটন, ভেড়ামারা উপজেরা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র সবাপতি মিজানুর রহমান মিজান প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আসমান আলী।

No comments

Powered by Blogger.