ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা ও সহধর্মিনী রাখী সোনা চাকমা

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা চত্বরের আবাসিক এলাকায় শীতকালীন ফুলের সমারোহ

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ শীতকালীন ফুলের সমারোহে  কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা চত্বরের আবাসিক এলাকায় নতুন সাজে সেজেছে। নানান প্রজাতির শীতের ফুলের সৌরভে পুরো এলাকা নয়নাভিরাম পরিবেশ বিরাজ করছে। শীতের শেষে ফাগুনের প্রথম প্রহর গুনছে ভেড়ামারা উপজেলা চত্বরের আবাসিক এলাকার রাস্তার দুই ধারে ফুল বাগানের ফুল।
সত্যি এরকমের ফুলে ফুলে ভরা প্রাকৃতিক সুন্দর যা সচরাচর দেখা মেলা কষ্টকর। প্রতিদিন বিকালে ভেড়ামারা উপজেলা চত্বরের আবাসিক এলাকায় ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা ও সহধর্মিনী রাখী সোনা চাকমা তৈরী করা ফুলের বাগান দেখতে ভীড় জমায় সবর্ শ্রেনীর নারী ও পুরষ। এমন একটি ফুলের বাগান তৈরী করার জন্য ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা ও সহধর্মিনী রাখী সোনা চাকমা কে এলাকাবাসী অভিনন্দন জানিয়েছেন।
ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা ও সহধর্মিনী রাখী সোনা চাকমার তত্বাবধানে উপজেলা চত্বরের ফুল বাগানে শীতকালীন নানান প্রজাতির ফুলের শোভাবর্ধনের কাজটি করা হয়েছে যা সকল মহলে প্রশংসার দাবীদার। এই বছর  প্রথম এই বাগানে বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের চারা ও গাছ লাগানো হয়। বিশেষ করে শীতকালীন ফুলকে বেশি প্রধান্য দিয়ে পরিচর্যা করা হয়। এবার এই বাগানে বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের মধ্য রয়েছে ইনকা গাঁদা, ডালিয়া, চায়না গাঁদা,হাইব্রীড কসমস,  সোলেশিয়া, ফুলাক্স, দন্ড মিস, ক্যানবিলা, চন্দন মললিকা, শ্রোবালড্যানথেচ,  সেলভিয়া, স্টার, হলিহক্স, ডালিয়া, জিনিয়াসহ বিভিন্ন ফুলের সমারোহ। এছাড়া ইরানী গোলাপ, কাটা গোলাপ, বিশ্ব সুন্দরী হাওড়া, বিভিন্ন প্রজাতির পাতাবাহার, একতারা, গন্ধরাজ, রঞ্জন, চ্যামেলী, জবা, মসুন্ধা, টগর, বেলি, হাসনাহেনা গাছত রয়েছেই। এবার শীতকালীন ফুলের চারা দেশের বিভিন্ন এলাকার নার্সারী থেকে আনা হয়েছে। এইসব ফুলের চারা রোপনের পর থেকে ফুল আসা পর্যন্ত নিবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে বাগানের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রতিদিন শহর এবং শহরতলীর বিভিন্ন এলাকা থেকে অনেকে এই বাগানের ফুল দেখতে আসেন। এই বাগানের ফুলের চারার রোপনের পর থেকে চারার পুষ্টি বৃদ্ধিতে জৈব সার ব্যবহার করে নিয়মিত পানি সরবরাহ ও পরিচর্যা করতে হয়।
ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মনি চাকমা ও সহধর্মিনী রাখী সোনা চাকমা নিজে প্রতিদিন দুই বেলা ফুলের  বাগান পরিচর্চা করে থাকে।  এই বাগানটিতে বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের সমারোহ ঘটানো হয়েছে। শহরের মাঝে এ ধরনের একটি পরিপাটি দৃষ্টিনন্দন ফুলের বাগান সকলের মনে নাড়া দেয়।

Post a Comment

0 Comments