সন্ত্রাসীদের হামলায় এনটিভির স্টাফ করেসপন্ডেন্টসহ তিনজন আহত # ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবে প্রতিবাদ


কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ডাকাত দলের হামলায় এনটিভির কুষ্টিয়াস্থ স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ও ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবের সদস্য ফারুক আহমেদ পিনুসহ তিনজন আহত হয়েছেন। ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক চেতনায় কুষ্টিয়া পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল’র সভাপতিত্বে
অনুষ্ঠিত গতকালকের সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক হিসনাবাণী পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আরিফুজ্জামান লিপটন, সহ-সভাপতি আনোয়ার পারভেজ শান্ত, রুহুল আমীন, যুগ্ম সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, হেলাল মজুমদার, রাহাত রাজা,  সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ সরকার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কামরুজ্জামান টুটুল, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফিরোজ মাহমুদ, নির্বাহী সদস্য ডাঃ একে এম কাওছার হোসেন, হাজী আনছারুল হক, রফিকুল ইসলাম দীপু খাঁন, তারিকুজ্জামান তারিক, ওয়ালিউল ইসলাম ওলি, আব্দুল আলিম, মনোয়ার হোসেন মারুফ, কামরুল ইসলাম মনা, গৌতম সরকার, এহসানুল হক সুমন, এসএম আবু ওবাইদুল আল মাহাদী, হৃদয় রায়হান,  শরিফুল আজম বাবুল ও মহন ইসলাম প্রমূখ।
শনিবার রাত সাড়ে ৯টার সময় ভেড়ামারা উপজেলার মোকারিমপুর ইউনিয়নের রায়টা -ভেড়ামারা সড়কের বাকাপোল নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ডাকতরা মোটরসাইকেল, নগদ ৩০ হাজার টাকা, তিনটি মোবাইল ফোন ও স্বর্ণালংকার লুট করে নেয়। আহতরা কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, রাত সাড়ে ৯টার দিকে এনটিভির কুষ্টিয়াস্থ স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ও ভেড়ামারা প্রেস ক্লাবের সদস্য ফারুক আহমেদ পিনু (৪৭), তার খালাতো ভাই মনোয়ার হোসেন (৪৯) ও প্রতিবেশী মনিরুল ইসলাম (৪২) অসুস্থ পিতাকে দেখতে ভেড়ামারা শহর থেকে মোটর সাইকেল যোগে নিজ গ্রামের বাড়ি গোলাপনগরের উদ্দেশে রওয়ানা হন। তারা বাকাপোল নামক স্থানে পৌঁছালে পুর্ব থেকেই রাস্তায় বাধা তারে জড়িয়ে ছিটকে পড়েন। এসময় ৮ থেকে ১০ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল তাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পাশের রেললাইনের উপর নিয়ে হাত-পা ও মুখ বেধে বেধড়ক পেটাতে থাকেন। এতে মারাত্মক আহত হয় ফারুক আহমেদ পিনু ও মনিরুল ইসলাম। এর এক পর্যায়ে ডাকাতরা মনিরুল ইসলামের টারবো নামের একটি মোটরসাইকেল, নগদ ৩০ হাজার টাকা, তিনটি মোবাইল ফোন ও একটি স্বর্ণের আংটি লুট করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।
ডাকাতরা চলে গেলেও হাত পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকেন ফারুক আহমেদ পিনুসহ তিনজন। ঘটনার তিন ঘণ্টা পর রাত সাড়ে ১২ টার দিকে হামাগুড়ি দিয়ে আবারো আঞ্চলিক সড়কে পৌঁছান তারা। এ সময় ওই সড়কে ভেড়ামারা পুলিশের একটি টহল দল তাদের দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাত দেড়টার দিকে আহতদের নেয়া হয় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে। রাতেই কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন ও কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার প্রলয় চিসিম হাসপাতালে এসে আহতদের খোঁজ খবর নেন।
ফারুক আহমেদ পিনু দাবি করেছেন, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার ওপর এ হামলা চালানো হয়েছে। ঘটনার সময় ডাকাতরা সাংবাদিকতা করার কারণে তাকে হত্যা করতে চেয়েছিল বলেও জানান তিনি।
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আজিজুন নাহার জানান, ফারুক আহমেদ পিনুর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার মাথা ফেটেছে।
কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার প্রলয় চিসিম বলেন, রাতেই পুলিশ কাজ শুরু করেছে। আমরা আশা করছি হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।
কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন বলেন, আমার মনে হয় এটা ছিনতাইয়ের ঘটনা। সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ায় ডাকাতরা তাকে বেশি মারধর করেছে।
এদিকে এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে জেলার কর্মরত সাংবাদিকরা।

Post a Comment

0 Comments