কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মিষ্টি ও দই খেয়ে শতাধিক ছাত্রী অসুস্থ ॥ ৬০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি


কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা শহরের রেলবাজার বণিক সমিতি এলাকায় অবস্থিত দধি ভান্ডারের দই ও মধ্যবাজার এলাকার পলাশ হোটেলের মিষ্টি খেয়ে মা খাদিজাতুন কোবরা মহিলা মাদ্রাসার অন্তত শতাধিক ছাত্রী অসুস্থ্য হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৬০ জন কে ভেড়ামারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা ভেড়ামারা হাসপাতালে রোগীদের সাথে দেখা করেন এবং তাদের সার্বিক খোজ নেন। প্রশাসনের ভুমিকা রহস্যজনক হওয়ায় আবার ৫দিনের মাথায় একই ঘটনা ঘটলো ।

ভেড়ামারা মডেল থানা, এলাকাবাসী ও হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, বুধবার ভেড়ামারা শহরের পূর্ব ভেড়ামারা এলাকায় অবস্থিত মা খাদিজাতুন কোবরা মহিলা মাদ্রাসায় দুপুরের খাওয়ার ব্যাবস্থা করে ডাঃ আঃ রাজ্জাক। দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। দোয়া মাহফিল শেষে খাবার দেওয়ার পর পরিবেশন করা হয় দধি ভান্ডারের দই ও পলাশ হোটেলের মিষ্টি। মিষ্টি ও দই খাওয়ার পর বুধবার সন্ধ্যা থেকেই শুরুহয় বিষক্রিয়া। রাত সাড়ে ৭টা থেকে গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হতে থাকে।  মিষ্টি ও দই খেয়ে অন্তত শতাধিক ছাত্রী অসুস্থ্য হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৬০ জন কে ভেড়ামারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সুমি, উমিলা, আয়েশা, খাদিজা, বুলবুলি, সুরাইয়া, আনোয়ারা, রুবিনা, আছিয়া, জুলেখা, মনোয়ারা, সাবিনা, হাবিবা,পপি, রাবেয়া, আমেনা, কবিতা, রোকেয়ার অবস্থা আশংকা জনক। একটি বেডে ৩ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ভেড়ামারা হাসপাতালে বেডে জায়গা না পাওয়ায় তাদের কে বারান্দায় সেলাইনসহ চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। ডাক্তাররা হিমশিম খেতে হয়। গত শনিবার কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা শহরের রেলবাজার বণিক সমিতি এলাকার অবস্থিত পাবনা সুইট’র বিষাক্ত দই খেয়ে বিয়ে বাড়ির লোকজন অন্তত ৭০ জন অসুস্থ্য হওয়ার পরও  প্রশাসনের ভুমিকা রহস্যজনক । ৫দিনের মাথায় আবার দধি ভান্ডারের দই ও পলাশ হোটেলের মিষ্টি খেয়ে অন্তত শতাধিক ছাত্রী অসুস্থ্য হয়েছে। এই নিয়ে জনগনের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্ষন্ত পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনী।
ডাঃ আঃ রাজ্জাক জানান, ভেড়ামারা শহরের রেলবাজার এলাকার বণিক সমিতি এলাকার অবস্থিত দধি ভান্ডারের দই ও মধ্যবাজার এলাকার পলাশ হোটেলের মিষ্টি ক্রয় করি। মিষ্টি ও  দই খেয়েই সন্ধ্যার পর থেকে ছাত্রীরা অসুস্থ হয়ে পড়ে।
ভেড়ামারা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলাম বলেন, মা খাদিজাতুন কোবরা মহিলা মাদ্রাসার ছাত্রীরা সন্ধ্যার দিকে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এর মধ্যে ৬০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ভেড়ামারা হাসপাতালের ডাঃ আমিরুল ইসলাম জানান, বিষাক্ত দই ও মিষ্টি খেয়ে অসুস্থ্য হয়েছে ছাত্রীরা। এদের মধ্যে শিশুদের অবস্থা আশংকাজন। তারা দই ও মিষ্টি খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তারা প্রত্যেকেই বমি এবং পাতলা পায়খানা রোগে আক্রান্ত হয়। প্রচণ্ড গরমে খাবার শেষে দই ও মিষ্টি খেয়ে এসব রোগী অসুস্থ হয়ে পড়ে। তবে দই এবং মিষ্টির মধ্যে ব্যকটেরিয়া থাকতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম বলেন, দুপুরে গোস্ত-পোলাও খাওয়া শেষে দই এবং মিষ্টি খেতে দেয়া হয়। এরপর সন্ধ্যার দিকে তারা অসুস্থ্ হয়ে পড়ে। যে হোটেল থেকে মিষ্টিও দই নেওয়া হয়েছে সেই হোটেলের মালিক, কর্মচারীসহ জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।

Post a Comment

0 Comments