ভেড়ামারায় কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতনের দাবীতে অনশন ॥ অসুস্থ্য-১৬

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ২১০  জন ৪ মাসের বকেয়া বেতনের দাবীতে (তিন ধরে) মঙ্গলবার পর্ষন্ত অনশন অব্যাহত রয়েছে। অনশন কালে ১৬ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী  অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। এদেরকে ভেড়ামারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র সি ও গোলাম মোস্তফাকে অনশনকারীরা অবরোধ করে রেখেছে। কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড এর মালিক পক্ষ কে ৫ দফা দাবী জানিয়ে স্বারকলিপি প্রদান করেছে।

ভেড়ামারায় কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা ও কর্মচারী ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দরা ৪ মাসের বকেয়া বেতন পায়নি। বেতন পরিশোধের ব্যাপারে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা সত্বেও কোন সন্তোষজনক ফলাফল পাওয়া যায়নি। কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড এর মালিক পক্ষ কে ৫ দফা দাবী জানিয়ে স্বারকলিপি প্রদান করেছে। ১, কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সকল দেনা পাওনা অবিলন্বে পরিশোধ করতে হবে। ২, প্রতিমাসের বেতন পরবর্তী মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে প্রদান করতে হবে। ৩, সঠিত তথ্য প্রবাহ সুনিশ্চিত করতে হবে। ৪, কোন কর্মকর্তা ও কর্মচারী কে হয়রানীমূলকভাবে বদলী অথবা চাকুরীচ্যুত করা যাবে না। ৫, বর্তমান অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে কোনরুপ অনাকাক্ষিত ঘটনার সূত্রপাত হলে তার দায়ভার সম্পূর্ণরুপে কোম্পানী পরিচালনা পর্ষদকেই বহন করতে হবে। অনশন চলাকালীন সময় ১৬ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী  অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। অসুস্থ্যরা হল কায়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা মজিবুর রহমান (৪০) , রবিউল ইসলাম (৪২), লালন আহমেদ (৩৫) আঃ সামাদ (৩৬) মাহাবুবুর রহমান (৩৫), রকেট বিশ্বাস (৪২), মফিজুর রহমান (৫৪), মেহেদী হাসান(৩২), শহিদুল হক(৩৬), ইসমাইল হোসেন (৪৫) ও ফারুক (৪১) কে ভেড়ামারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, আমাদের ৫ দফা দাবী না মানা পর্ষন্ত অনশন অব্যাহত থাকবে। 
কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেমস লিমিটেড’র সি ও গোলাম মোস্তফা বলেন, মলিক পক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে। মালিক টাকা দিলে তাদের বেতন দেওয়া হবে। আমাকে অবরোধ করার ঘটনা সত্য।

Post a Comment

0 Comments