ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের নর্বনিবাচিত চেয়ারম্যান আলম ও বণিক সমিতি’র সভাপতি বাদলসহ সকল নেতাকর্মী’র মুক্তি দাবী

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা জাসদ কর্তৃক দায়েরকৃত বিষ্ফোরক মামলায় সদ্য নির্বাচিত কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ তৌহিদুল ইসলাম আলম, ভেড়ামারা মধ্যবাজার বণিক সমিতি’র সভাপতি ও পৌর বিএনপি’র  প্রচার সম্পাদক বদরুজ্জামান বাদলসহ অর্ধশতাধিক বিএনপি’র নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবী করেছেন জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটি’র অন্যতম নেতা, কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও কুষ্টিয়া- (ভেড়ামারা-মিরপুর) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য  অধ্যাপক শহীদুল ইসলামসহ জেলা ও উপজেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দরা।
উল্লেখ্য, গত ২৯ ডিসেম্বর ভেড়ামারা শহরের মধ্য বাজারে বিএনপি ও জাসদ এর মধ্যে সংঘর্ষে হয়। ওই ঘটনায় ভেড়ামারা উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক আনছার আলী বাদী হয়ে ভেড়ামারা থানায় ৬২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৩-৪’শ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। এ মামলায় হাইকোর্ট শর্তসাপেক্ষে গত ২০ জানুয়ারি এ্যাডঃ তৌহিদুল ইসলাম আলম, ভেড়ামারা মধ্যবাজার বণিক সমিতি’র সভাপতি ও পৌর বিএনপি’র  প্রচার সম্পাদক বদরুজ্জামান বাদলসহ সকল নেতাকমী কে ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন দেয়। জামিন মেয়াদ শেষ হওয়ায় উপজেলার সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ তৌহিদুল ইসলাম আলম, ভেড়ামারা মধ্যবাজার বণিক সমিতি’র সভাপতি ও পৌর বিএনপি’র  প্রচার সম্পাদক বদরুজ্জামান বাদল, চাঁদগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি জানবার হোসেন, ধরমপুর বিএনপির সাধারন সম্পাদক রবিউল সরকার, মুস্তাক আহমেদ মিন্টুসহ সকল নেতাকর্মী উচ্চ আদালতের নির্দেশক্রমে বুধবার কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে আত্মসর্মপন করে জামিন আবেদন করেন। ওই আদালতের বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল ইসলাম তাদের জামিন আবেদন খারিজ করে তাদের কারাগারের পাঠানোর নিদের্শ দেন। কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ তৌহিদুল ইসলাম আলম গত ১৯শে ফ্রেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়।

Post a Comment

0 Comments