কুষ্টিয়ার মিরপুরে গৃহবধূ রিনি কে গরম তরকারী গায়ের উপর ঢেলে হত্যার চেষ্টা

বছরখানিক আগে কুষ্টিয়া শহরতলীর বারখাদা উত্তরপাড়া এলাকার বিল¬ালের মেয়ে বেবি খাতুন রিনি (১৬) কে স্কুল থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে বিয়ে করে মিরপুরের গোবিন্দপুর এলাকার রবজেলের ছেলে সবুর। তাদের দাম্পত্ব জীবনে রিনি এখন ৫ মাসের গর্ভবর্তী। রিনির স্বামী সবুর একজন মাদকসেবী।
মাদকের টাকার জন্য সবুর তার শশুর বাড়ি থেকে নিয়মিত যৌতুকের টাকা নিত। ১ মাস পূর্বে সবুর তার স্ত্রী রিনিকে দিয়ে শশুরবাড়ী থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়ে আসে। কিন্তু সেই টাকা ফুড়িয়ে যাওয়ায় আবারও ৫ হাজার টাকা দাবী করে। পিতার অভাবের কথা বিবেচনা করে রিনি টাকা আনতে রাজি হয় না। স্বামীর নির্যাতন কথা এভাবেই বর্ণনা করে বর্তমানে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ৭ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসারত রিনি। রিনির পরিবার সুত্রে জানা যায়, গত সোমবার বিকেল সারে ৪টার দিকে রিনির স্বামী সবুর জুয়াখেলা শেষে করে মাদকাসক্ত অবস্থায় তার বাড়িতে আসে। এ সময় সবুর রিনিকে বাপের বাড়ি থেকে ৫ হাজার টাকা আনতে বলে। এ সময় রিনির শ্বশুর ও শ্বাশুরীও রিনিকে তার বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলে। রিনি তার পিতার অবস্থা ভেবে টাকা আনতে অস্বীকৃতি জানালে তাৎক্ষনিক রান্না করা গরম তরকারী রিনির গায়ের উপর ঢেলে দেয় এবং তার গলায় তার দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। গরম তরকারীকে রিনির পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ পুরে যায়। এ সময় রিনির আত্মচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে রিনিকে উদ্ধার করে রিনির বাবার বাড়ি বারখাদায় পাঠিয়ে দেয়। এ বিষয়ে মিরপুর থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে বলে রিনির পরিবার জানায়। ৫দিনেও স্বামী ও শ্বশুর বাড়ীর লোকজন কে পুলিশ আটক করতে পারেনী।

Post a Comment

0 Comments